বাঙালি ‘প্রথম নাগরিক’-এর জীবন ছুঁয়ে সাংবাদিকের কলমে ভারতীয় রাজনীতির কয়েক দশক

0
7604
সুঅঙ্গনা বসু

ভারতের সদ্য প্রাক্তন ‘প্রথম নাগরিক’, মনের মণিকোঠায় জমা আছে ভারত রাষ্ট্রের নানা আবর্তনের ‘ক্লাসিফায়েড’ তথ্য। বঙ্গসন্তান শ্রী প্রণব মুখোপাধ্যায়ের স্মৃতিচারণে ডুব দিলে তাই মিলতে পারে গুপ্তধন। কিন্তু মন্ত্রগুপ্তির শপথের কাছে তিনি দায়বদ্ধ। ব্যক্তি প্রণব মুখোপাধ্যায় তাই আত্মজীবনী লেখার ক্ষেত্রে রক্ষণশীল ছিলেন আছেন এবং থাকবেন। শুক্রবার সাংবাদিক সুমন চট্টোপাধ্যায়ের লেখা বই ‘প্রথম নাগরিক’ –এর প্রকাশ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেই বৈঠকী আড্ডা শুরু করলেন প্রণববাবু। গত কয়েক দশকে শ্রী মুখোপাধ্যায়কে খুব কাছ থেকে দেখেছেন সুমন চট্টোপাধ্যায়। কারিগর প্রকাশিত ‘প্রথম নাগরিক’–এর কেন্দ্র চরিত্র প্রণব মুখোপাধ্যায় এবং সেই অনুষঙ্গে গত কয়েক দশকের রাজনৈতিক আবর্তনের আখ্যান – যেমন দেখেছেন লেখক। কিন্তু বই প্রকাশ অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্রে কার্টুন কেন?

এই কৌতূহলের নিরসন করেই আলোচনা শুরু করেছেন লেখক। নেহরুর মতোই ব্যঙ্গচিত্র সম্পর্কে সহনশীল প্রণববাবু। নিজের কোনো কার্টুন কত চিত্তাকর্ষক হয়েছে এ নিয়ে আলোচনাও বিশেষ পছন্দের তাঁর। অসহিষ্ণুতা বিতর্কের প্রসঙ্গে স্পষ্ট স্টেটমেন্ট দিয়েই জমে উঠল বই প্রকাশ ও বৈঠকী আড্ডা। বিজয়ার রেশ ছুঁয়ে শুরু হয়েছিল বৈঠক। সংসদে দেবদেবীদের সুরাপান নিয়ে বিতর্কে কী ভাবে শ্লোক আউড়ে হারিয়ে দিয়েছিলেন মুরলী মনোহর জোশীকে, উঠল সে প্রসঙ্গও।

আড্ডা জমলে তিনি নাকি উপেক্ষা করতে পারতেন ইন্দিরা গান্ধীর ডাকও – লেখকের এই মন্তব্যের উত্তরে অশীতিপর বঙ্গসন্তান বললেন, আরে এ তো সব বাঙালির ক্ষেত্রেই সত্যি। আটপৌরে ঘরোয়া আড্ডা হলেও তাঁকে সামনে পেয়ে প্রশ্ন করার লোভ সামলানো সম্ভব নয়। তাই উত্তর কোরিয়া থেকে রাষ্ট্রপতি ভবনের সংস্কারমূলক কাজ – প্রশ্ন এল নানা বিষয়ে। ‘নিউক্লিয়ার ব্রিফকেসের’ চাবির জিম্মা থাকলে নিশ্চিন্তে ঘুম আসে কি না? সব প্রশ্নের উত্তর দিলেন বৈঠকী মেজাজেই। জানালেন, বিনিদ্র রাত কেটেছিল মুম্বই জঙ্গি হামলার কয়েকটা দিন। নেহরুর ভারত বদলে দীনদয়াল উপাধ্যায়ের ভারত হয়ে যাচ্ছে – প্রসঙ্গ গুনগুনিয়ে উঠলে তিনি জানালেন তাঁর ভরসা আছে মানুষের ওপর। ভুল হলে শুধরে দেয় জনগণই।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here