ওয়েবডেস্ক: ভেবে দেখেছেন কখনও- প্রায় প্রত্যেক দিনই কেন করিনা কাপুর খান আর সইফ আলি খানের খুদে ছেলেটাকে নিয়ে এত খবর হচ্ছে?

অনেকে অনেক রকম যুক্তিই দেখাতে পারেন! বলতে পারেন, দেশের এক নম্বর নায়িকার ছেলেকে নিয়ে একটা কৌতূহল তো থাকেই, সংবাদমাধ্যমও তার ব্যবহার করছে পুরোমাত্রায়! যুক্তি দেখাতে পারেন, নবাব বংশের সন্তানসন্ততির জীবনযাত্রাও সাধারণ মানুষের আগ্রহের কারণ, যার পরিণামে বিনোদুনিয়ার খবরের শিরোনামে একটা পাকা জায়গা তৈরি করে ফেলেছে খুদেটা!

কিন্তু এহ বাহ্য! সম্প্রতি তৈমুর আলি খানের নাম ব্যবহার করে যে ফেসবুক পেজটি জন্ম নিয়েছে, তার বক্তব্য দেখলে চমকে উঠতে হবেই! কেন না, ফেসবুকের এই পাতা তৈমুরকে সরাসরি যুক্ত করেছে দেশের রাজনীতির সঙ্গে।

যিনি বা যাঁরা এই ফেসবুক পেজটি তৈরি করেছেন, তিনি এর নাম রেখেছেন – পিকচার্স অব তৈমুর আলি খান টু ডিসট্র্যাক্ট ইউ ফ্রম রিয়্যাল ইস্যুস! বাংলায় তর্জমা করলে দাঁড়ায় – তৈমুর আলি খানের ছবি দেশের প্রকৃত অবস্থা থেকে আপনার দৃষ্টি ঘুরিয়ে দিচ্ছে!

বিস্ফোরক এই নামের পর এ বার একটু চোখ রাখা যাক এই ফেসবুক পেজ-এর পোস্টে। এই পাতার সব ছবিই তৈমুরের, কখনও একার, কখনও বা মা-বাবার সঙ্গে। যেমন একটি ছবি ব্যবহার করা হয়েছে তৈমুরকে কোলে নিয়ে সইফের। সঙ্গে লেখা- “কী মিষ্টি না তৈমুরের চোখদুটো! গোবিন্দার উক্তি একটু বদলে নিয়ে বলা যায়- ঠিক যেন দৃষ্টি দিয়েই গুলি মারছে! ভালো কথা, গুলির প্রসঙ্গে মনে এল…” এটুকু বলেই শুরু হয়েছে অসমের উত্তপ্ত পরিস্থিতির কথা।

কখনও বা আবার এই পাতায় উঠে এসেছে তৈমুরের মনভোলানো রূপের কথা। বলা হয়েছে, “জীবনে হামেশাই আমরা অনেক কিছুই হেলাফেলায় গ্রহণ করি! ঠিক যেমন তৈমুরের সৌন্দর্য!” তার ঠিক পরেই এসেছে আবহাওয়া এবং প্রকৃতি সম্পর্কিত কড়া কথার প্রসঙ্গ। অবাক হয়ে যাচ্ছেন তো?

তা-ই হওয়ার কথা! কিন্তু বলিউডের বাতাসে উড়ছে জোর গুজব- এই ফেসবুক পেজটির জন্ম সুপরিকল্পিত হলেও নেহাতই তৈমুরকে বিদ্রুপ এর একমাত্র উদ্দেশ্য নয়। অনেকেই বলতে আরম্ভ করেছেন যে এ আসলে তৈমুরকে রাজনীতিতে নিয়ে আসার পরিকল্পনা। কেন না, সইফ কিছু দিন আগেই এক সাক্ষাৎকারে এই কথা বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন যে বলিউডে তাঁদের ছেলেমেয়েরা সবাই নিজেদের জায়গা করে নিতে পারবে না!

সেই জায়গা থেকেই কি এ বার এই ভাবে তৈমুরের ভবিষ্যত সুরক্ষিত রাখার পরিকল্পনা নিয়েছেন নবাব-দম্পতি?

দেখা যাক! উত্তর ভবিষ্যতই দেবে!

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here