হাঁটুন, ছুটুন, সাঁতার কাটুন, নাচুন – বয়স হলেও শরীর-মন সুস্থ থাকবে

0
247

নিউইয়র্ক : শরীর সুস্থ রাখতে গেলে যে শরীরচর্চা দরকার – এই সহজ সত্যিটা অনেকে জানলেও তা অভ্যাস করেন না। ঘুরে ফিরে সেই কথাই গবেষণার মধ্যে দিয়ে প্রমাণ করলেন বোস্টন বিশ্ববিদ্যালয়ের এক দল গবেষক।

তাঁদের মতে, হাঁটা, ছোটা, সাঁতার কাটা, নাচ করা এই সব কিছুই শরীর সুস্থ রাখে। তবে শুধু শরীর নয়, তার সঙ্গে সঙ্গে মাথাকেও সুস্থ রাখে। মস্তিষ্কের কার্যকারিতা বাড়াতে এগুলির জুড়ি মেলা ভার। হাঁটা, ছোটা, সাঁতার কাটা, নাচ করার ফলে বয়সকালে মস্তিষ্কের সমস্যা অনেকটাই এড়ানো যায়। কমানো যায় অ্যালঝাইমার্স রোগ হওয়ার আশঙ্কাও।

গবেষকদের মতে, শরীর কতটা সবল বা দুর্বল তার ওপর নির্ভর করে মস্তিষ্কের কার্যকারিতা। যে সব বয়স্ক মানুষ নিয়মিত শরীরচর্চা বা ব্যায়াম করেন তাঁদের হৃদয় আর মস্তিষ্ক সমবয়সি অন্যদের থেকে অনেক বেশি সবল ও সচল।

বোস্টন বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ অধ্যাপক স্কট হেইস বলেন, এই বিষয়ে গবেষণা করার জন্য ১৮ থেকে ৩১ বছর এবং ৫৫ থেকে ৭১ বছর বয়সিদের বেছে নেওয়া হয়। যে সময়ে এঁরা ট্রেডমিলে হাঁটতেন আর ছুটতেন, সেই সময় গবেষকরা তাঁদের হৃদযন্ত্রের পরীক্ষা করেন। তার মধ্যে কার্ডিয়াক রেসপিরেটরি ফিটনেস যাঁদের মধ্যে বেশি ছিল তাঁরাই আবার মনের রাখার কাজগুলিতে ভালো ফল করেছেন। তুলনায় যাঁদের কার্ডিয়াক রেসপিরেটরি ফিটনেস কম তাঁদের স্মৃতির ক্ষমতাও কম।

তিনি বলেন, কার্ডিয়াক রেসপিরেটরি ফিটনেস বাড়ানো যায়। তার জন্য নিয়মিত হাঁটা, ছোটা, সাঁতার কাটা, নাচ করার মতো কাজগুলি করে যেতে হবে। তাতে স্মৃতিশক্তি, মস্তিষ্ক, হৃদয় সবই দারুণ চাঙ্গা হয়ে উঠবে। তাঁরা গবেষোণায় দেখেছেন, বিশেষ করে বয়স্কদের মধ্যে কিছু শেখা বা মনে রাখার সমস্যা বেশি হয়। সে ক্ষেত্রেও এই একই অভ্যাস খুবই কাজে লাগবে।

এই গবেষণাপত্রটি কর্টেক্স পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here