ডাক্তারের চেম্বার থেকে: ফ্যাটি লিভারে সাবধান

0

ডাঃ অভিজিৎ চন্দ

তপব্রত বিশ্বাস। আইটি সেকটরে উচ্চ পদস্থ কর্মী। উচ্চতা পাঁচ ফুট পাঁচ ইঞ্চি। ওজন উচ্চতার থেকে বেশ খানিকটা বেশি, ৮৫ কিলো। কয়েকদিন যাবৎ তার শরীরটা ভালো যাচ্ছিলো না। চিকিৎসকের কাছে গেলে তিনি পরীক্ষ করে জানান লিভারে চর্বি জমেছে।

আব্দুর রহিম একজন স্কুল টিচার। স্বাস্থ্যের গড়ন মোটামুটি ভাল। উচ্চতা ওজন ঠিকই আছে। কিন্তু এনার সমস্যা হল পেটটা কিছুতেই ভালো যায় না। এই মুহূর্তে ভালো হলে অপর মুহুর্তে মন্দ। রিচ খাবার কিছুতেই সহ্য হয় না। চিকিৎসকের দ্বারস্থ হলেন। ডাক্তার কিছু টেস্ট করতে দিলেন। আলট্রাসনোগ্রাফিতে ফ্যাটি লিভার ধরা পড়লো।

বিজ্ঞাপন

অসীম সেন পাঁচ বছর যাবৎ ডায়াবেটিস রোগে ভুগছেন। আবার আগে থেকেই উচ্চ রক্তচাপের জন্য ঔষধও খান। ডাক্তারের কাছে চেকআপ করতে গিয়ে নতুন করে তার ফ্যাটি লিভার পাওয়া গেছে।

ফ্যাটি লিভার: এক্সট্রা টেনশন

যান্ত্রিক সভ্যতা মানুষের জীবনযাপনকে সহজ করে দিচ্ছে ঠিকই, কিন্তু সেই সাথে নিয়ে এসেছে বাড়তি রোগের চাপ। যন্ত্রপাতির ব্যবহারে একদিকে মানুষের পরিশ্রম কমে গেছে, অন্যদিকে খাদ্যদ্রব্য সহজলভ্য হয়ে উঠেছে। ফলে পরিশ্রমের তুলনায় অধিক খাদ্য গ্রহণ শরীরে প্রয়োজনের অতিরিক্ত ক্যালরি সরবরাহ করছে। যার দরুণ শরীরের মেদ জমতে শুরু করে। কিন্তু রক্তে অতিরিক্ত যে ফ্যাটি এসিড থাকে লিভার সেগুলো টেনে নিয়ে নিজের কোষে জমা করতে থাকে। এভাবেই যখন ট্রাইগ্লিসারাইড, ফসফোলিপিড ও কলেস্টেরল জমা হতে হতে লিভারের নিজস্ব ওজনের ৫ -১০% শতাংশ ফ্যাট জমা হয় তখন তাকে ফ্যাটি লিভার ডিজিজ বলে।

ফ্যাটি লিভার পাওয়া যায় ঘটনাক্রমে

ফ্যাটি লিভারে আক্রান্ত রোগীদের কোন সুনির্দিষ্ট উপসর্গ দেখা যায় না। তবে সাধারণত রোগীরা অত্যাধিক দুর্বলতার অভিযোগ করে থাকেন, কেউ কেউ বুকের নিচে পেটের ডানদিকে ব্যাথার কথাও বলেন। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ফ্যাটি লিভার আবিষ্কার হয় অন্য কোন একটি রোগের জন্য পরীক্ষা করতে গিয়ে। রক্তে লিভার এনজাইম মনিটর করতে গিয়ে কিংবা পিত্তে পাথর সন্দেহ করে পরীক্ষা করতে গিয়ে বা অন্য কোন কারণে আলট্রাসাউন্ড করতে গিয়ে ফ্যাটি লিভার ধরা পড়ে।

সচেতন হতে হবে

ইতিমধ্যে আলোচনার মধ্য দিয়ে জানা গেছে যে, ফ্যাটি লিভার থেকে সিরোসিস এমনকি লিভার ক্যান্সারও হতে পারে। এছাড়া ফ্যাটি লিভারে আক্রান্ত রোগীদের হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার সম্ভাবনাও বেশি থাকে। সুতরাং যারা পুরো শরীর চেকআপ করতে গিয়ে অথবা অন্য কোন কারণে ডাক্তারের শরণাপন্ন হয়ে জানতে পেরেছেন যে, তাদের ফ্যাটি লিভার আছে, তাদের উচিৎ রোগটি সম্পর্কে জানা এবং কীভাবে এই অবস্থার চিকিৎসা করা যায় তা অবহিত হয়ে চিকিৎসা গ্রহণ করা। সর্বোপরি এই রোগটি যেন না হয় সে সম্পর্কে সচেতন থাকার চেষ্টা করা।

কীভাবে চিকিৎসা করব

নন অ্যালকোহলিক ফ্যাটি লিভার ডিজিজের চিকিৎসাকে দুটো ভাগে ভাগ করা যায়। একটি হল ফ্যাটি লিভারের চিকিৎসা এবং দ্বিতীয়টি হল মেটাবলিক সিনড্রোমের চিকিৎসা। মেটাবলিক সিনড্রোমের চিকিৎসায় নীচের বিষয়গুলো অন্তুর্ভুক্ত:

  •         উচ্চ রক্তচাপের চিকিৎসা
  •         ইনসুলিন রেজিসটেন্সের চিকিৎসা (যেমন: ডায়াবেটিসের চিকিৎসা)
  •         রক্তে অধিকমাত্রায় চর্বির চিকিৎসা
  •         শরীরের অতিরিক্ত মেদের চিকিৎসা

বিভিন্ন পরীক্ষানিরীক্ষায় দেখা গেছে, খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন ও ব্যায়াম না করলে অন্যান্য ফারমাকোলজিক্যাল চিকিৎসা পদ্ধতিগুলো পৃথকভাবে কোন উপকারে আসে না। জীবানাচার পরিবর্তনের মূল লক্ষ্য হলো, অতিরিক্ত মেদযুক্ত ব্যক্তিদের ক্রমান্বয়ে ওজন কমিয়ে উচ্চতার তুলনায় পর্যাপ্ত ওজনে নিয়ে আসা। অতিরিক্ত ওজনের ব্যক্তিদের শরীরে ইনসুলিনের সংবেদনশীলতা কমে যায়। ফলে শরীরের ফ্যাট সেলে সংরক্ষিত লিপিডগুলো ভেঙ্গে রক্তে মুক্ত ফ্যাটি অ্যাসিডের পরিমাণ বেড়ে যায়। লিভার এই অতিরিক্ত ফ্যাটি এসিড গ্রহণ করে নিজের ভিতর জমা করতে থাকে। খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তনের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি হল:

  •            অতিরিক্ত ফ্রুক্টোজযুক্ত খাদ্য পরিহার করা।
  •            কোকাকোলা, সেভেন আপ জাতীয় সফটড্রিংক্স পরিহার;
  •            কৃত্রিম জুস, সস ইত্যাদি পরিহার;
  •            অতিরিক্ত ট্রান্সফ্যাটযুক্ত খাদ্য যেমন: বেশি তেলে ভাজা খাবার, ঘি দিয়ে তৈরি খাবার ইত্যাদি পরিহার করা। ‘
  •            ওমেগা-থ্রি’ তেল যুক্ত খাবার যেমন: মাছ, তিসির তেল, আখরোট ইত্যাদি লিভারের চর্বি কমাতে উপকারী।

বিভিন্ন সায়েন্টিফিক স্টাডিতে দেখা গেছে, শরীরচর্চা তথা ব্যায়াম একা একা লিভারের চর্বি কমাতে সাহায্য করে না। তবে খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তনের সাথে সাথে নিয়মিত শরীরচর্চার মধ্য দিয়ে ওজন কমানো গেলে লিভারের ফ্যাট কাটানো যায়। শরীরচর্চার পরিমাণ যাই হোক নিয়মিত করা গেলে এবং ধরে রাখতে পারলে ওজন কমানো যায়। তবে প্রতি সপ্তাহে ১৫০ মিনিটের ব্যায়াম সবচেয়ে বেশি উপকারী।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here