গরম জল আর নুন, তা দিয়ে গার্গলের আশ্চর্য গুণ, জেনে নিন বিশদে

0
1438
gargle

ওয়েবডেস্ক: এক গেলাস গরম জল আর একটু নুন! সাবেকি এই মিলমিশ যে কত অস্বস্তি থেকেই আমাদের বাঁচায়, তা বহু পরীক্ষিত সত্য। অনেক দিন ধরেই ঠান্ডা লাগা, গলা ব্যথা, সাইনাসের সমস্যা থেকে সবাইকে আরাম দিচ্ছে এই ঘরোয়া টোটকা।

কিন্তু কী ভাবে, সেটা কি ভেবে দেখেছেন কখনও?

চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, গরম জলে নুন মেশানোর পরে তা যখন গলায় যায়, তখন সেই নুন একটা প্রলেপ তৈরি করে গলার ভিতরে। সেই প্রলেপ যাবতীয় ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাসকে দূরে রাখে। সেখান থেকেই কষ্টের সময় গরম জলে নুন দিয়ে গার্গল করলে আরাম পাওয়া যায়।

এ বার তাহলে এক এক করে দেখে নেওয়া যাক, কোন কোন অসুখে মন্ত্রের মতো কাজ দেয় নুন মেশানো গরম জলের গার্গলিং!

১. গলা ব্যথা, গলার ঘা
ঠান্ডা লাগলে গরম জলে নুন মিশিয়ে গার্গল করলে যে হাতে হাতে সুফল পাওয়া যায়, সে আমরা অনেক দিন-ই জানি। ঠান্ডা লাগা থেকে জন্ম নেওয়া গলার ব্যথা কমাতে গরম নুন-জলের গার্গলের জুড়ি মেলা ভার। কিন্তু গলার ভিতরে কোনো কারণে ঘা হলে সে ক্ষেত্রেও গরম নুন-জলের গার্গল তুলনাহীন। কেন না, নুন ঘায়ের ব্যাকটেরিয়া মেরে দেয়।

২. অ্যালার্জি
শুধু ঠান্ডা লাগা থেকে তৈরি হওয়া গলার ব্যথাই নয়, কোনো কারণে অ্যালার্জি থেকে গলায় ব্যথা হলেও গরম নুন-জলের গার্গল কাজে আসে। যাঁদের বাড়িতে কুকুর বা বিড়াল আছে, অনেক সময় তাদের লোম থেকেও অ্যালার্জি হয়ে গলায় ব্যথা হয়। সে ক্ষেত্রেও গরম নুন-জলের গার্গল আরাম দেয়।

৩. সাইনাস এবং ঠান্ডা লাগা থেকে তৈরি হওয়া শ্বাসকষ্টের সমস্যা
যাঁদের সাইনাসের সমস্যা আছে, চিকিৎসকরা তাঁদের গরম নুন-জলের গার্গলের সুপরামর্শ দিয়ে থাকেন। তা ছাড়া ২০১৩ সালের একটি চিকিৎসা-সংক্রান্ত রিপোর্ট জানিয়েছে, ফ্লু হলে ভ্যাকসিন নিলে যতটা না কাজ হয়, তার চেয়ে ঢের বেশি কাজ দেয় গরম নুন-জলের গার্গলে।

৪. মুখের আলসার
মুখের আলসার থেকে যে ব্যথা এবং ফোলা তৈরি হয়, তা কমাতেও গরম নুন-জলের ঘরোয়া টোটকা বহু দিন ধরে প্রচলিত তথা স্বীকৃত। নুন ব্যাকটেরিয়া মেরে দেয় বলে ব্যথা যেমন কমে, তেমনই মুখের আলসারের ফোলাও কমে যায়।

৫. দাঁতের স্বাস্থ্যরক্ষা
দাঁতের ব্যথায় গরম নুন-জলের গার্গল যেমন কাজে দেয়, তেমনই তা জিঞ্জিভাইটিস ও ক্যাভিটিসের হাত থেকেও রেহাই দেয়। রক্ষা করে মাড়ির সুস্বাস্থ্যও। এ ছাড়া লালায় যে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া থাকে, গরম নুন-জলের গার্গল তাকেও মেরে শরীর সুস্থ রাখে।

গার্গলের সুফল পেতে জল কতটা গরম রাখা প্রয়োজন?
এ ক্ষেত্রে যতটা গরম জল আপনি সহ্য করতে পারবেন, ততটাই উষ্ণতা রাখুন। কেন না, শুধুই নুন নয়, জল কতটা গরম, তার উপরেও ব্যাকটেরিয়া নাশের ব্যাপারটি নির্ভর করে। অর্থাৎ, জল যত গরম থাকবে, ততই ভালো!

কতটা নুন নিলে ভালো হয় এক গেলাস গরম জলে?
এক গেলাস গরম জলে অন্তত চায়ের চামচের অর্ধেক পরিমাণ নুন নেওয়া বাধ্যতামূলক। না হলে ব্যাকটেরিয়া যাবে না, গার্গল করেও আরাম মিলবে না।

কতক্ষণ গরম জল গার্গলের সময় মুখের ভিতরে রাখা দরকার?
যতক্ষণ আপনি রাখতে পারেন! যত বেশিক্ষণ সম্ভব, মুখে জল নিয়ে মাথাটা একটু হেলিয়ে তা ঠেলে পাঠিয়ে দিন গলার গভীরে। দেখবেন, সুফল পাচ্ছেন অনেক বেশি।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here