চিনে অবসাদের নতুন দাওয়াই ভারতের যোগাসন

0
164

‘যোগ’ ভারতের বহু প্রাচীন সম্পদ। সেই ‘যোগ’ই এখন দেশে দেশে দারুণ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর হাত ধরে গত দু’বছর ‘বিশ্বযোগ দিবস’ও পালন করা হচ্ছে। তাতে ব্যস্ততম মার্কিনদেশের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা থেকে বিশ্বের বহু মানুষই সেদিন যোগাসন করতে মাঠে নেমেছিলেন। এবার চিনে ১০০ দিনের যোগ প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়েছে। এই ১০০ দিনে সেখানকার ১০০টি বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগাভ্যাস করানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে।

দেশের যুবকযুবতীদের মানসিক অবসাদ দূর করা ও তাদের চাপ মুক্ত করার লক্ষ্যে এই বন্দোবস্ত করেছেন আয়োজকরা। প্রাচীন কালে ভারতে নানা ধরনের যোগচর্চা করা হত। তার মধ্যে যেমন ছিল যোগাসন, প্রাণায়াম, তেমনই ছিল ধ্যানও। সেই সময়ে শরীর-মনের স্বাস্থ্য সতেজ রাখতে, শরীরে বিভিন্ন হরমোনকে সঠিক ভাবে সঞ্চালিত হওয়ার সুযোগ করে দিতে এই সমস্ত যোগ উপায় অভ্যাস করতেন ও অভ্যাস করার পরামর্শ দিতেন মুনিঋষিরা। সেই একই লক্ষ্যে বিশ্বের নানা দেশ আপন করে নিচ্ছে যোগাভ্যাসকে। চিনও সেই পথের পথিক।

১০০ দিনের এই যোগাভ্যাসের মধ্যে ‘যোগী যোগা’ সংস্থা প্রাণায়াম, ধ্যান, যোগাসনকে বেছে নিয়েছে। সংস্থার সিইও ইয়িন ইয়ান জানালেন, তাঁর স্বামী মোহন সিংহ ভাণ্ডারীই এই অভিযানটা শুরু করেছেন। তিনি এক জন ভারতীয়। তিনি ছাত্রছাত্রীদের অবসাদ দূর করার জন্য বিশেষ কতকগুলো যোগাসন তালিকায় রেখেছেন। যেগুলি অভ্যাস করে দেশের যুবসমাজ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারবে। নিরাময় করতে পারবে স্নায়ুচাপ আর অবসাদ-এর মতো বেশ কয়েকটি রোগও।

গত বছরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর চিন সফরের সময়ে সে দেশে একটি যোগ কলেজ স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়। এছাড়া ‘যোগী যোগা’ সংস্থাটিও একটি যোগ গবেষণাকেন্দ্র গড়ে তুলেছে।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here