উপোস করে ওজন কমাতে চাইছেন? জেনে নিন বিশেষজ্ঞরা কী বলছেন

0

ওয়েবডেস্ক : রোগা হওয়ার খুব একটা সহজ উপায় উপোস, এমনটা অনেকেই মনে করেন। উপোস করে যে রোগা হওয়া যায় এই কথাটা খুব একটা ভুল নয়। তবে সহজ নয়, যথেষ্ট কঠিন পথ এটি। কারণ ভুল পথে উপোস করলে শরীর দুর্বল হয়ে যায়। তাতে হিতে বিপরীত হয়। তাই এর জন্য অবলম্বন করতে হয় বেশ কিছু সাবধানতাও।

সম্পূর্ণ উপোস করে নয়, সঙ্গে প্রচুর পরিমাণ জল আর ফল, ফলের রস নিয়ম মেনে খেতেই হবে। না হলেই বিপত্তি। তবে উপোস করার পর আবার পুরোনো খাদ্যাভ্যাসে ফিরে গেলে হবে না। মানতে হবে নিয়ম। না হলে কিন্তু ওজন কমার পরিবর্তে ওজন বেড়ে যাবে।

উপোসে ওজন কমানো কি ভালো উপায়? কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা?

বিজ্ঞাপন

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পদ্ধতি হিসেবে এটি মোটেই ভালো নয়। তবে এর সাহায্য নেওয়া যেতেই পারে। কারণ এটি শরীরের টক্সিন দূর করতে সাহায্য করে। তবে সঙ্গে খেতে হবে ফল আর ফলের রস। এতে করে ক্যালোরি কম পরিমাণে শরীরে যায়। কিন্তু এটি মেটাবলিজমের হার কমিয়ে দেয়। শরীর দুর্বল হয়ে যায়।

তবে ঠিক পথে যদি উপোস করা যায় তা হলে দু’ তিন দিনে অনেকটা টক্সিন শরীর থেকে বের করে দেওয়া যায়।

আসুন জানি, ঠিক পথটা তা হলে কী?

ব্যায়াম – উপোসের সঙ্গে ব্যায়াম। তবে খুব হালকা ব্যায়ামই এই সময় করা উচিত। অর্থাৎ উপোস থাকাকালীন। কারণ ভারী খাবার না খাওয়ার দরুণ শরীর দুর্বল থাকে। সঙ্গে ভারী ব্যায়াম করলে শরীর অসুস্থ হয়ে পড়তে পারে।

আরও পড়ুন : ভাত না রুটি, রোগা হতে চাইলে কোনটা খাবেন? কেন?

শরীরকে আর্দ্র রাখা – উপোস করলেই হল না। সেই সময় শরীরকে যথেষ্ট পরিমাণ জল সরবরাহ করতে হবে। সঙ্গে নানা ধরনের ফলের রস। যাতে শরীর কোন ভাবেই জলশূন্য না হয়ে পড়ে। উপোস করার পর খাবার কম খাওয়াটা কিন্তু ভুল সিদ্ধান্ত। খাবার পর্যাপ্ত পরিমাণেই খেতে হবে। তা না হলে শরীর ফলস ওয়েট গেন করবে, সেটা ক্ষতিকর। তাই খাবার বাছাই ঠিকঠাক হওয়াটা জরুরি। জাঙ্কফুড, বেশি ক্যালোরিযুক্ত খাবার খাদ্য তালিকা থেকে বাদ দিতে হবে।

জেনে নিন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে কিনা?

হ্যাঁ। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হল শরীর অত্যাধিক দুর্বল হয়ে যায়। তাই তাঁরা ওজন কমানোর জন্য অন্য স্বাস্থ্যকর পদ্ধতির কথাই চিন্তা করার পরামর্শ দিচ্ছেন। তাঁদের মতে তাতে সময় বেশি লাগলেও সেটাই ভালো ও উপযুক্ত।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here