গুজরাতে বিজেপিকে ধাক্কা: ‘টাকার খেলা’র অভিযোগ সদ্য যোগ দেওয়া পাটিদার নেতার, আরেক নেতার ১৫ দিনেই ইস্তফা

0
570
patidar leader narendra patel in press conference

অমদাবাদ: গুজরাত নির্বাচনে বড়োসড়ো ধাক্কা খেল বিজেপি। দলে যোগ দেওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ‘টাকার খেলা’র অভিযোগ তুললেন এক পাটিদার নেতা। আরেক নেতা ১৫ দিন নতুন দলে থেকে ইস্তফা দিয়ে দিলেন।

গুজরাতের পাটিদারেরা একটা শক্তিশালী সামাজিক শক্তি। আসন্ন নির্বাচনে তাঁদের একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকবে, এটা বুঝতে পেরে হার্দিক পটেলের সংগঠনে নানা ভাবে ভাঙন ধরানোর চেষ্টা করছে বিজেপি। চেষ্টা করছে পাটিদার নেতাদের দলে টানার। সেই চেষ্টায় টাকার খেলা চলছে, এ বার সেই অভিযোগ উঠে এল। এবং সেই অভিযোগ তুললেন বিজেপিতে যোগ দেওয়া এক পাটিদার নেতা।

narendra patel showing money in press conference
সাংবাদিক সম্মেলনে টাকা দেখাচ্ছেন নরেন্দ্র পটেল।

উত্তর গুজরাতে পাটিদার আন্দোলনের অন্যতম নেতা নরেন্দ্র পটেল বিজেপিতে যোগ দেওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরেই জানিয়ে দিলেন, ওই দলে যোগ দেওয়ার জন্য তাঁকে এক কোটি দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছিল। তবে তিনি এটা জানিয়ে দিতে ভোলেননি যে টাকার জন্য নয়, পাটিদারদের কল্যাণের জন্যই তিনি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন।

পাটিদার আন্দোলনের নেতা হার্দিক পটেলের এক কালের ঘনিষ্ঠ সহযোগী বরুণ পটেলের উপস্থিতিতে রবিবার সকালে নরেন্দ্র বিজেপিতে যোগ দেন। সেই নরেন্দ্র রবিবার গভীর রাতে তড়িঘড়ি সাংবাদিক সম্মেলন করে বরুণের বিরুদ্ধেই টাকা দেওয়ার অভিযোগ আনেন।

শুধু তা-ই নয়, নরেন্দ্র সাংবাদিকদের সামনেই ৫০০ টাকার অনেকগুলো বান্ডিল মেলে ধরে জানান, এতে দশ লক্ষ টাকা আছে। এটা তিনি বিজেপির কাছ থেকে অ্যাডভান্স হিসেবে পেয়েছেন। তিনি অভিযোগ করেন, এই ‘টোকেন’ নগদ নেওয়ার জন্য বরুণ পটেল তাঁকে রাজ্য বিজেপি সভাপতি জিতুভাই ভগানির কাছে নিয়ে যান।

নরেন্দ্র বলেন, “বরুণ আমাকে গান্ধীনগরে বিজেপির শ্রী কমলম অফিসে নিয়ে যান  এবং জিতুভাই ভগানি ও কিছু মন্ত্রীর সঙ্গে আলাপ করিয়ে দেন। পরে তিনি আমাকে একটা ঘরে নিয়ে যান, নগদ দশ লক্ষ টাকা ভর্তি একটা ব্যাগ দেন। আমাকে বলেন, আগামিকাল দলের একটা অনুষ্ঠানে আমাকে হাজির থাকতে হবে। তার পরে বাকি ৯০ লক্ষ টাকা দেবেন।”

নরেন্দ্র বলেন, তিনি এই টাকা চান না। তিনি পাটিদের কল্যাণের স্বার্থেই এই প্রচারে যোগ দিয়েছেন। কোনো রাজনৈতিক লাভের আশায় এখানে আসেননি…। এই টাকা তো কষ্ট করে উপার্জনের টাকা নয়। এটা দুর্নীতির টাকা।

এর আগে রবিবার সকালে সংবাদ মাধ্যমের সামনেই তিনি বিজেপিতে যোগ দেন। তাঁকে গেরুয়া উত্তরীয় পরিয়ে বরণ করা হয়। নরেন্দ্র বলেন, “গোটা ব্যাপারটা এত দ্রুত ঘটে গেল যে বলার নয়। ওরা সঙ্গে সঙ্গে সংবাদ মাধ্যমকে ডাকল আর আমাকে এই শো-টা করতে হল। ওরা আমার জন্য এক কোটি টাকার একটা ‘ডিল’ করল। এক কোটি? ওরা যদি পুরো রিজার্ভ ব্যাঙ্কটা আমাকে দিয়ে দেয়, তাতেও আমাকে কেনা যাবে না। আমাকে লড়াই করতে করতে যদি মরে যেতে হয়, তা-ও সই।”

উত্তর গুজরাতের পাটিদার আনামত আন্দোলন সমিতির (পিএএএস) আহ্বায়ক নরেব্দ্র পটেল গত মাসে হার্দিক পটেলের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ করেন। পরে সেই অভিযোগ তুলে নেন।

নরেন্দ্রর অভিযোগ অবশ্য যথারীতি অস্বীকার করেছেন বরুণ পটেল। তিনি সংবাদসংস্থা এএনআই-কে বলেছেন, পাটিদাররা কংগ্রেসের গেমপ্ল্যান বুঝতে পারছে। ওরা বিজেপিকে সমর্থন করছে। এই অভিযোগ ভিত্তিহীন। উল্লেখ্য, এই বরুণ পটেল শনিবারই উপ-মুখ্যমন্ত্রী নিতিন পটেল, রাজ্য বিজেপি সভাপতি জিতুভাই ভগানি প্রমুখের উপস্থিতিতে বিজেপিতে যোগ দেন।

বিজেপির মুখপাত্র ভারত পান্ড্য রবিবার রাতের নরেন্দ্রর সাংবাদিক সম্মেলনকে ‘বানানো নাটক’ বলে অভিহিত করেছেন।

সদ্য যোগ দেওয়া নেতার ইস্তফা

nikhil savani
নিখিল সবানি

মাত্র ১৫ দিন নতুন দলে থেকে ইস্তফা দিয়ে দিলেন আরেক পাটিদার নেতা নিখিল সবানি। সোমবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে নিখিল বলেন, “হার্দিক আর আমার মধ্যে মতভেদ থাকতে পারে, কিন্তু মনভেদ নেই। আমি পাটিদার সমাজের কল্যাণের জন্য কাজ করি। পাটিদার সমাজের কল্যাণের জন্যই বিজেপিতে গিয়েছিলাম। কিন্তু এখন দুঃখের সঙ্গে বলতে হচ্ছে বিজেপি পাটিদের সমাজের সঙ্গে ভোটব্যাঙ্কের রাজনীতি করছে। পাটিদের কেনার চেষ্টা করছে। তাই আমি বিজেপি থেকে ইস্তফা দিচ্ছি।”

নিখিলের অভিযোগ, পাটিদারদের জন্য চারটি বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার। তাই বিজেপিতে গিয়েছিলেন তিনি। এখন দেখা যাচ্ছে ওই চারটি বিষয়ে কোনো কাজই হচ্ছে না। এখন শুধু পাটিদারদের কেনার জন্য বিজেপি কোটি কোটি টাকা খরচ করছে।

কোটি টাকা ‘ঘুস’ দেওয়ার ব্যাপারটি নরেন্দ্র সামনে আনায় নিখিল তাঁকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, নরেন্দ্র ছোটো পরিবার থেকে এসেছে। তবুও সে কোটি টাকা ফিরিয়ে দিয়ে সমাজকে সচেতন করেছে। তাঁকে ধন্যবাদ।

নিখিল বলেন, হার্দিক পটেল সমাজের জন্য যে আন্দোলন করছেন, তা পুরোপুরি ঠিক। হার্দিক বলেছেন, বিজেপি পাটিদাদের বেকুব বানানোর চেষ্টা করছে। ঠিকই বলেছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here