বাঁকুড়ার পাথরবাঁধের বিপজ্জনক বাঁকে যে পুজো হয় কৌশিকী অমাবস্যায়

0
863
the dangerous turn at patharbandh
পাথরবাঁধের সেই বাঁক।
indrani sen
ইন্দ্রাণী সেন

গুরুত্বপূর্ণ রাজ্য সড়কে পথ দুর্ঘটনা এড়াতে মা কালীর আরাধনা। তাই এখানে বলিদানে রক্তপাত নিষিদ্ধ। আর সে কারণেই বেশির ভাগ জায়গায় শাক্তমতে পুজো হলেও এখানে সম্পূর্ণ বৈষ্ণবমতে পুজো করা হয়। আর তাই এই পুজোতে বলি নিষিদ্ধ বলে জানিয়েছেন পুজোর আয়োজকরা।

বাঁকুড়া-ঝাড়গ্রাম ৯ নং রাজ্য সড়কের পাশে রাইপুর ব্লকের ফুলকুসমার পাথরবাঁধ। সেখানে বিপজ্জনক বাঁকের কাছেই গত ন’ বছর ধরে পূজিতা হচ্ছেন মা কালী।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, আগে এই বিপজ্জনক বাঁকে দুর্ঘটনা লেগেই থাকত। বছরভর প্রাণহানির ঘটনাও কম ছিল না। প্রশাসনের তরফে দুর্ঘটনা এড়াতে বেশ কিছু পদক্ষেপ করা হলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। দুর্ঘটনা বন্ধ করা যায়নি। তাই দুর্ঘটনা এড়াতে শেষ পর্যন্ত মা কালীর উপরই ভরসা রাখেন স্থানীয়রা।

আট বছর আগে এই গুরুত্বপূর্ণ বাঁকে স্থানীয় উদ্যোগে শুরু হয় কালী আরাধনা। বাঁকের মুখে কালীপুজো শুরুর পর থেকে দুর্ঘটনা অনেকটাই কমেছে বলে দাবি স্থানীয়দের।

temple construction is going on
তৈরি হচ্ছে মন্দির।

পুজো কমিটির  উদ্যোক্তা ধনঞ্জয় মাইতি বলেন, এই বাঁকে আগে প্রায়শই দূর্ঘটনা ঘটত। সমস্যা সমাধানের কোনো পথ না পেয়ে আমরা দুর্ঘটনা রুখতে কালীপুজো করার সিদ্ধান্ত নিই। মা কালীর কৃপায় দুর্ঘটনা এখন অনেকটাই কমেছে। এই পুজো অবশ্য কার্তিক অমাবস্যায় হয় না, হয় কৌশিকী অমাবস্যায়। প্রতি বছর এখানে কৌশিকী অমাবস্যায় ধুমধাম করে কালী পুজা হয়। উদ্যোক্তাদের পাশাপাশি অনেক সাধারণ মানুষও এই পুজোয় সাহায্য করতে এগিয়ে আসেন বলে তিনি জানান।

এখন ওই বাঁকের মুখে স্থায়ী কালীমন্দির নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পুজো কমিটির পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েছে, এই জায়গায় মন্দির নির্মাণ সম্পূর্ণ হয়ে গেলে দেবীর প্রস্তরমূর্তি নির্মাণ করে স্থায়ী পুজোর ব্যবস্থা করা হবে।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here