বেশ কয়েক ধরনের গার্হস্থ্য অত্যাচার অপরাধ নয় রাশিয়ায়

0
120

রাশিয়া : যেমনটি ভাবা গিয়েছিল ঠিক তেমনটাই হল। গার্হস্থ্যদ্বন্দ্ব সম্পর্কিত নতুন আইনে স্বাক্ষর করলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। মঙ্গলবার এই আইনে স্বাক্ষর করে বেশ কয়েক ধরনের গার্হস্থ্য অত্যাচারকে অপরাধ নয় বলে স্বীকৃতি দিলেন। এই আইনে স্বাক্ষর করে তিনি রক্ষণশীল দলের প্রশংসা কোড়ালেও বিতর্কের ঝড় উঠল মেয়েদের অধিকার নিয়ে সচেতন গোষ্ঠীগুলির মধ্যে। নতুন আইনে বলা হল, যদি অত্যাচারের ফলে চোখে পড়ার মতো কোনো শারীরিক ক্ষতি না হয় তা হলে সেটি অত্যাচার বলে গণ্য হবে না। 

রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রক এই আইনের বিষয়ে জানিয়েছে। আইনে বলা হয়েছে, পরিবারের মধ্যে মারপিটের ঘটনা অপরাধ নয়। সে ক্ষেত্রে মারপিটের ফলে সামান্য ছড়ে-কেটে যাওয়া, কোনো রকম চোট বা কালশিটে পড়ে যাওয়া, শরীরের বাইরের অংশে হওয়া কোনো ক্ষত, চামড়ার ক্ষতি হলে তা কোনো অপরাধ নয়। যদি না এক বছরের মধ্যে তা বার বার ঘটে। যদি এই ঘটনা বারংবার ঘটে তা হলে তার বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের করা যাবে।   

এই বিতর্কিত বিলে স্বাক্ষর করেন দেশের ৩৮০ জন ডেপুটি। ৩ জন এর বিরোধিতা করেন। মন্ত্রক সূত্রের খবর, প্রায় বাধাহীন ভাবেই পাশ হয় এই আইন। 

আইনের সমর্থনে বলা হচ্ছে, যে সমস্ত অভিভাবক তাঁদের সন্তানদের কোনো কিছু শেখানোর জন্য মারধর করেন, তাঁদের আইনি জটিলতা থেকে মুক্তির জন্য এই আইন করা হয়েছে। পাশাপাশি যে সমস্ত অপরিচিত মানুষ ঠিক একই কারণে ছোটোদের এক আধবার মারধর করেন তাঁদেরও যাতে কোনো রকম আইনি জটিলতায় পড়তে না হয়, সেটাও এই আইনের উদ্দেশ্য। 

এই গার্হস্থ্য আইনে সামান্য পরিমাণ অপরাধের শাস্তি দু’ বছর থেকে কমিয়ে ১৫ দিনের জেল করা হয়েছে। অপরাধীকে ৩০ হাজার রুবেল ফাইনও দিতে হতে পারে। 

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here