কোষে কষায় কোস্তা রিকান ফুড ফেস্টিভ্যাল ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত

0
139

souryaশৌর্য মেউর:

শুরু হয়ে গেল কোস্তা রিকান ফুড ফেস্টিভ্যাল। সেই  উপলক্ষে বুধবার কোস্তা রিকান অতিথিরা হাজির হয়েছিলেন কোষে কষা রেস্তোরাঁর রিপন স্ট্রিট আউটলেটে। ইউনিভার্সিটি অফ কোস্তা রিকার প্রতিনিধি হয়ে কলকাতা এসেছেন খাবিয়ের দে লা তেখা এবং তাঁর স্ত্রী এলিজাবেথ দিয়াজ। শুধু কোস্তা রিকাই নয়, সঙ্গে ছিল চিলি এবং বলিভিয়া থেকে আগত অতিথিরা। হল প্রচুর আড্ডা – গল্প, আর সঙ্গে অবশ্যই খাওয়াদাওয়া। প্রথমেই উত্তরীয় পরিয়ে বরণ করে নেওয়া হয় অতিথিদের। তার পর ছবিপর্ব। সুন্দর অন্দরসজ্জাকে প্রেক্ষাপট করে সবাই ছবি তুলতে মগ্ন হন। তার পর সুসজ্জিত কোস্তা রিকান খাবার।

প্রথমে আসে ফ্লায়িং ডাচম্যান। না, ভাববেন না এক ওলন্দাজ উড়তে উড়তে এসে হাজির হলেন। এটি একটি সুস্বাদু পানীয় মাত্র। মূলপর্বে যেতে অবশ্য বেশি দেরি হয়নি। রেস্তোরাঁর দোতলায় সাজানো হয়েছিল হরেক রকম আকর্ষণীয় খাবার। তবে সেখানে শুধু কোস্তা রিকান খাবারই ছিল না, ভারতীয় খাবারও স্থান পেয়েছিল তার মাঝে।

মোচার চপ, ভেটকি চিংড়ির মেলবন্ধন, কড়াইশুঁটির কচুরি, ছোলার ডাল প্রভৃতির পাশাপাশি ছিল স্প্যানিশ এম্পানাদা, পিকাদিয়ো, বেকড ভেটকি উইথ কোকোনাট-সিলান্ত্র সস, আরজ কন পোয়োর মতো কোস্তা রিকান খাবারদাবার। আর ছিল মুখোরচক ছানার কাবাব কারি, গন্ধরাজ চিকেন।

মিষ্টিতে ছিল সবার প্রিয় বেকড রসগোল্লা। কোস্তা রিকান খাবিয়ের জানান, চিংড়ি বিরিয়ানি পদটি আর তার সঙ্গে বাংলার মাছ তাঁর খুব ভালো লেগেছে। তবে কলকাতার মিষ্টি তাঁর ভীষণ প্রিয়। আর ঠিক সে কারণেই তাঁর সব থেকে ভালো লেগেছে বেকড রসগোল্লা। তাঁর সঙ্গে সহমত বাকি সকলেই।

কোস্তা রিকার খাদ্য বিশেষজ্ঞ ইন্দ্রনীলবাবু জানালেন, গত বছরের বলিভিয়ান ফুড ফেস্টিভ্যালের মতোই এ বার বইমেলার প্রধান অতিথি দেশ কোস্তা রিকার ফুড ফেস্টিভ্যাল করা হচ্ছে। কোস্তা রিকান খাবারে আদা ব্যাবহৃত হয় না বলিভিয়ার মতো আর তার সঙ্গে ঝাল-মশলার ভাগটা কম। তবে এই ব্যাপারগুলি বাদ দিলে কোস্তা রিকানদের খাদ্যাভ্যাস অনেকটা বাঙালির মতই। বাঙালিদের মতোই তারা অনেকগুলি পদ সাজিয়ে খেতে অভ্যস্ত এবং সে সবের সঙ্গে অবশ্যই থাকে গায়ো পিনতো এবং কাসাদার মতো পদ। একটি জনপ্রিয় কোস্তা রিকান পদ আরজ কন লেচের সাথে বাঙালির ভাতের পায়েসের মিল পাওয়া যায়। শুধু প্রথমটি তৈরি হয় দারচিনি দিয়ে এবং দ্বিতীয়টি হয় এলাচ দিয়ে। কোষে কষা রেস্তোরাঁয় বাঙালি খাবারের পাশাপাশি কোস্তা রিকান খাবারও পাওয়া যাবে ফুড ফেস্টিভ্যাল চলাকালীন। ফুড ফেস্টিভ্যাল চলবে ১৫ই ফেব্রুয়ারি অবধি। দু’জনের খাওয়ার জন্য খরচ হবে মোটামুটি ৭০০ টাকা।

এদিন খাবিয়ের কোষে কষার কর্ণধার অরুণাভ দাসশর্মাকে আহ্বান করেন বাঙালি খাবার কোস্তা রিকায় নিয়ে যাওয়ার জন্য। তাঁর মতে, বাঙালিদের এত বৈচিত্র্যপূর্ণ খাবার কোস্তা রিকানদের অবশ্যই ভালো লাগবে। শুধু তা-ই নয়, ভারত ও কোস্তা রিকার মধ্যে এক দৃঢ় সম্পর্ক গড়ে তোলার প্রথম পদক্ষেপ হিসাবে খাবিয়ের বেছে নিলেন এই খাদ্য-মাধ্যমকে।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here