ইঞ্জিনিয়ারকে পায়ে ধরে ক্ষমা চাইয়ে বিতর্কে বিধায়ক

0
99

নিজস্ব সংবাদদাতা, গুয়াহাটি: মন্ত্রীর জুতোর ফিতে বেঁধে দিচ্ছেন আইএএস-আইপিএস আধিকারিক, এ রকম ঘটনার সাক্ষী থেকেছে দেশবাসী। এ বার গাড়ি রাখা নিয়ে বিবাদের জেরে ইঞ্জিনিয়ারকে দিয়ে পায়ে ধরে ক্ষমা চাওয়ালেন বিধায়ক। এ নিয়ে চলছে বিতর্ক, সমালোচনার ঝড় উঠেছে দেশ জুড়ে।

ঘটনার সূত্রপাত বৃহস্পতিবার নগাঁও জেলার কঠিয়াতলিতে। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার উদ্বোধনে এসেছিলেন রহার বিজেপি বিধায়ক ডিম্বেশ্বর দাস। কামপুর উন্নয়ন খণ্ডের জুনিয়ার ইঞ্জিনিয়ার জয়ন্ত দাস অনুষ্ঠানস্থলের প্রবেশদ্বার থেকে বিধায়কের গাড়ি সরাতে বলায় বিবাদের সূত্রপাত। প্রথমে বিধায়কের সঙ্গীরা জয়ন্তবাবুকে হেনস্থা করে। পরে খোদ বিধায়ক এসে জয়ন্তবাবুকে ধমকান। শেষ পর্যন্ত ‘অপরাধ’-এর ‘শাস্তি’স্বরূপ বিধায়কের পায়ে ধরে জয়ন্তবাবুকে ক্ষমা চাইতে হয়।

মোবাইলে তোলা ওই দৃশ্য ভাইরাল হতেই তোলপাড় শুরু হয় সংবাদমাধ্যমে, সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে। বিধায়ককে ক্ষমা চাইতে বলে কর্মচারী পরিষদ। বিধায়ক নিজে অবশ্য ঘটনাটিকে নিছকই সাধারণ ঘটনা বলে দাবি করে বলেছেন, “আমি কাউকে পায়ে ধরতে বলিনি”। ঘটনার পর রাতারাতি সাংবাদিক বৈঠক ডেকে বিধায়ক সাফাই দেন, “আমার গাড়িচালকের সঙ্গে বচসা হচ্ছিল জয়ন্তর। আমি গিয়ে মিটমাট করি। তার পর হঠাৎ জয়ন্ত নিজে থেকে এসে আমার পা ছুঁয়ে ক্ষমা চায়”।

ঘটনার প্রতিবাদে সোচ্চার হয়ে কংগ্রেসের মুখপাত্র অপূর্ব ভট্টাচার্য মন্তব্য করেছেন, “বিজেপির সামন্ততান্ত্রিক আদর্শের প্রতিফলন এই ঘটনা।” অন্য দিকে বিজেপি সাংসদ রামপ্রসাদ শর্মা ঘটনার জন্য ডিম্বেশ্বরবাবুর নিন্দা করে বলেন, “এমন ঘটনা অনভিপ্রেত। বিধায়কের জন্য দলকে লজ্জায় পড়তে হচ্ছে। মনে রাখা উচিত সাংসদ বা বিধায়করা মালিক নন, জনতার সেবক।”

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here