না ভালো, না মন্দের বাজারে এসবিআই আশা জাগাচ্ছে

0
sbi

বিশেষ প্রতিনিধি: ক্রমশ আশার সঞ্চার হচ্ছে ভারতীয় শেয়ার বাজারকে ঘিরে। এই সপ্তাহের প্রথম ট্রেডিং ডে-তে বাজার খোলার পর নিফটি যে কিছুটা ভালো ফল করতে পারে, তেমন একটা ধারণারই জন্ম দিয়েছে সিঙ্গাপুর স্টক এক্সচেঞ্জ। কারণ সেখানে নিফটির বিক্রিবাটা মোটের উপর মন্দ হয়নি। কিন্তু জাপানের শেয়ার সূচক আবার ধসে গিয়েছে সোমবার বাজার খোলার সঙ্গে সঙ্গেই। ফলে না ভালো, না মন্দ অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে এ দেশের শেয়ার বাজারেও।

গত সপ্তাহেই জানা গিয়েছিল ভারতীয় স্টেট ব্যাঙ্কের তৃতীয় ত্রৈমাসিক লাভের পরিমাণ অনেকটাই বেড়েছে। আবার উল্টো দিকে গত আর্থিক বছরের তৃতীয় ত্রৈমাসিকের তুলনায় লোকসানের পরিমাণও কমেছে। তবে এনপিএর পরিমাণ সামান্য বেড়েছে। কিন্তু এনপিএ নিয়ে রাষ্ট্রায়ত্ত বৃহত্তম এই ব্যাঙ্ক বরাবর নির্দিষ্ট নিয়মনীতি গ্রহণ করে থাক। ফলে সামান্য এই বৃদ্ধি কাটিয়ে ওঠা কোনো প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারবে না। স্বাভাবিক ভাবেই এসবিআই নিয়ে সদর্থক চিন্তাভাবনা করা যেতেই পারে।

গত নভেম্বরে এসবিআই ৩৫১.৩০ টাকা সর্বোচ্চ চুড়া ছুঁয়ে ফেলার পর বিনিয়োগকারীরা আশা করেছিলেন, এ বার বোধহয় পুরনো ফর্মে ফিরতে চলেছে এই স্টক। কিন্তু বাজারের একের পর এক নেতিবাচক ঘটনাপ্রবাহ এসবিআইকে সেই যে খাদের দিকে টেনে নামাতে শুরু করেছে, উপরের ওঠার সমস্ত কৌশলই ব্যর্থ হয়েছে। কিন্তু আশর্য জনক ভাবে গত কয়েক দিনে বাজেট এবং বিশ্ব বাজারের ধসের সংক্রমণের জেরে এ দেশের বাজার যে পতন দেখেছে, তার প্রভাব এসবিআইয়ে সে ভাবে পড়তে দেখা যায়নি।

বিজ্ঞাপন

তাই বলে এসবিআইয়ের নিত্য দিনের ট্রেডিং ভলিউম যে সাংঘাতিক ভাবে কমে গিয়েছে, সেটাও নয়। অর্থাৎ বাজারে যখন শেয়ার বিক্রি করে দেওয়ার হিড়িক পড়েছে, তখন এসবিআইয়ে ক্রেতার সংখ্যা কমেনি সে ভাবে। কারণ এই স্টকে বিনিয়োগকারীদের বিশ্বাস, ব্যাঙ্কের ভাঁড়ারে আমানত বাড়াতে সুদের হার বাড়ানোর সিদ্ধান্ত এক বার ঘোষিত হয়ে গেলেই এসবিআইয়ের গ্রাফের ঊর্ধ্বগমন আর ঠেকানো যাবে না। বহুকাঙ্ক্ষিত ৩৮০-৪০০ টাকার লক্ষ্য পূরণে এসবিআইয়ের সেই দৌড় থেকে লাভবান হওয়ার জন্য বিনিয়োগ করা যেতেই পারে। তবে ধরতে হবে ২৯০-এর নীচে।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here