এই দিনটার অপেক্ষাতেই ছিল শেয়ার বাজার, যদিও এখানেই শেষ নয়

0
1063
share market

বিশেষ প্রতিনিধি: আকাঙ্ক্ষিত ৩৫ হাজার পয়েন্ট টপকে গেল সেনসেক্স। নিফটিও ১০ হাজার ৮০০ পয়েন্ট অতিক্রম করল গত বুধবার। তবে এই জোড়া সাফল্যে উচ্ছ্বসিত হওয়ার পালা হয়তো এখানেই থেমে থাকবে না। চলতি বছরের মধ্যেই সেনসেক্স এবং নিফটি আরও অনেক রেকর্ড করার জন্যই প্রহর গুনছে।

নিফটি যে ১১৫০০ পয়েন্ট ছুঁতে চলেছে, সে কথা গত মাসখানেক ধরেই আলোচ্য বিষয় হয়ে উঠেছে। এমনকী গুজরাত ভোট-সহ একাধিক ইস্যুতে যখন বাজারে টালমাটাল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে তখনও আমরা এমন ধারণা থেকে নড়তে পারিনি। ট্রেড পণ্ডিতরা যখন বলছেন, গত প্রায় দু’দশকে  গুজরাতে  যত বার বিজেপি সরকার গড়েছে ততবারই নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার এক মাসের মধ্যেই সেনসেক্স এক হাজার পয়েন্ট পড়ে গিয়েছে। কিন্তু এ বার হয়েছে তার উল্টোটাই। নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পর থেকে সেনসেক্স এখনও পর্যন্ত প্রায় দেড় হাজার পয়েন্ট বেড়ে গিয়েছে।

ধান ভানতে শিবের গীত কেন? কারণটা হল গত বুধবার বাজারের উত্থানের নেপথ্যে কারণ হিসাবে দেখানো হচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকারের রাজকোষে ঘাটতি কমার বিষয়টিকে। সরকারি ঘোষণায় বলা হয়েছে, কেন্দ্র বাজার থেকে ৫০ হাজার কোটি টাকা ঋণ নেওয়ার কথা ভেবে থাকলেও এখন পরিস্থিতি অনুযায়ী ২০ হাজার কোটি টাকা নিলেই চলবে। ব্যস, এর মানে বাকি টাকা সরকার জোগাড় করে ফেলেছে। রাজকোষে ঘাটতি কমেছে। এই খবরেই বাজার চাঙ্গা হয়ে ওঠে বাজার। বিনিয়োগকারীরা হু-হু করে শেয়ার কিনতে শুরু করে দেন। কিন্তু এটাই সব এবং শেষ কারণ নয়।

বিজ্ঞাপন

ভারতীয় শেয়ার বাজারে প্রতিদিন যে হারে বিদেশি বিনিয়োগকারী সংস্থাগুলি টাকা উপুড় করে দিচ্ছে, তারও একটা বড় ইতিবাচক প্রভাব রয়েছে। ঠিক যেমনটা প্রভাব রয়েছে দেশীয় বিনিয়োগকারীদের বাজারকে আরও সময় দেওয়ার দৃষ্টিভঙ্গি। ২০১৮ সালের মধ্যেই যে শেয়ার বাজার চমকপ্রদ একটা কিছু ঘটাতে চলেছে, তার আগাম আঁচ পাওয়া গিয়েছে মাস ছয়েক আগেই। এখন শুধুই অপেক্ষা আর ছোটো-বড়ো উত্থান-পতনকে উপভোগ করা।

আগামী ১৯ জানুয়ারি,২০১৮ খবরঅনলাইনে পড়ুন: সেই পাঁচটি স্টক, যেগুলি ১১ মাস ১০ দিনে দেবে ৩০ শতাংশ রিটার্ন

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here