চম্বল ফার্টিলাইজারকে ঠেকানো এ বার মুশকিল হয়ে যাবে

0
NSE BSE SHARE MARKET SENSEX

বাজারের সংশোধন দেখে অনেকেই আশ্বস্ত বোধ করছেন নিশ্চয়। নিফটি বা সেনসেক্সের সামান্য তম উত্থান-পতন এর আগেও দেখা গিয়েছে। কিন্তু গত কাল বাজরের মতি দেখে বোঝাই যাচ্ছিল, কী অস্বাভাবিক স্নায়ুযুদ্ধ চলছে বুল আর বিয়ারের। তবে আর সেই একই কথার পুনরাবৃত্তি- নিফটি থিতু হতে চাইছে ১০৪০০ পয়েন্টে। কারণ তার লক্ষ্য এখন আরও একটু উপরে চড়ার। খুব বেশি জ্যোতিষীগিরি না করেও বলা যেতে পারে, নিফটি আগামী এক মাস অর্থাৎ সবে শুরু হওয়া জানুয়ারিতেই না ১০৭০০ পয়েন্ট ছুঁয়ে ফেলে।

শেয়ার বাজারে যাঁরা বিনিয়োগ করেন, তাঁরা যে বাজারের সূচকগুলিকে নিয়মিত মান্যতা দেন বা মেনে চলেন, তেমনটা না-ও হতে পারে। বিশেষ করে নবাগত বিনিয়োগকারীরা তো বাজারের বদলে যে স্টকটি কিনলেন সেটিকে নিয়েই পড়ে থাকেন। এই প্রতিবেদকও প্রথম প্রথম একই পথের পথিক ছিল। কিন্তু ওই অবৈজ্ঞানিক পদ্ধতি মাথায় বাসা বেঁধে ফেললে মুশকিল। আমরা জানি, বাজারের চরম বিপর্যয়ের দিনেও যখন সেনসেক্স ৩০০ পয়েন্ট পড়ে গিয়েছে তখন কোনো একটা নির্দিষ্ট স্টক পাঁচ টাকা বেড়ে রয়েছে। মাথায় রাখবেন ভারতীয় সেনসেক্সে নথিভুক্ত স্টকের সংখ্যা ৩০ আর নিফটিতে ৫০। এ ছাড়া প্রকৃতি অনুযায়ী আরও কয়েকটি নিফটি বা গোষ্ঠী রয়েছে। আপনার কেনা স্টকটি সেগুলির কোনো না কোনো একটির অন্তর্ভুক্ত। ফলে সেই সূচকের পর্যবেক্ষণ করতে হবে। আর পর্যবেক্ষণ করতে হবে, যে স্টকটি কেনা হচ্ছে সেটির চরিত্র। সেই সংস্থার সম্পর্কে কিছু তথ্য জেনে নেওয়া এখনকার দিনে কোনো সমস্যাই নয় ইন্টারনেটের দৌলতে।

এ বার আসা যাক, আজকের বিনিয়োগের কথায়। গত কাল কোল ইন্ডিয়া কেনার কথা বলা হয়েছিল। মাসখানেক সময় দিতে হবে ওই স্টকটিকে। গতকালই যথেষ্ট ভাল প্রদর্শনী আমরা দেখেছি কোল ইন্ডিয়ার কাছ থেকে। আজ উঠে এসেছে রাসায়নিক সার উৎপাদক সংস্থা চম্বল ফার্টিলাইজার অ্যান্ড কেমিক্যালস লিমিটেড। যে কিনা এক বছর আগেও ঘোরাঘুরি করছিল ৫৫-৬০ টাকায়। আর এখন সেই চম্বই ছুঁয়ে ১৬৪ টাকা। এক বছরে গতগুণ বা শতাংশ বৃদ্ধি পেলেন বিনিয়োগকারী, অঙ্ক কষে ফেলুন।
তবে একটা কথা, চম্বলের দাম তিনগুণ বেড়েছে সে কারণেই এটাকে কিনতে হবে, এমন যুক্তির কোনো ভিত্তি নেই। কিন্তু চলতি শীতের কৃষিকাজের দিকে তাকিয়ে সংস্থা যে রেকর্ড পণ্য বিক্রির চিন্তা করছে সেটাকেই ভাবনার মধ্য়ে রাখতে বলা হচ্ছে। রাসায়নিক সার বা অন্যান্য অনুষঙ্গের বাজারে আর যাই হোক, মন্দা নেই। হয়তো হেরফের হয়, লাভের অঙ্কের।

বিজ্ঞাপন

এ দিকে আবার চম্বলের বর্তমান ভলিউম দিনে দিনে বে়‌ড়েই চলেছে। এর সামগ্রিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে বোঝা যায়, আগামী পাঁচটি ট্রেডিং ডে সময় দিলে ১৭৫ টাকা ছুঁয়ে ফেলাটা খুব একটা বিস্ময়কর হবে না। তবে হ্যাঁ, ১৫০ টাকার নীচে নামলে তখন আবার বিপরীত সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here