সিনেমাওয়ালা, প্রসেনজিৎ, ঋতুপর্ণা, কৌশিক- সাংবাদিকদের বিচারে শ্রেষ্ঠ

0
252

কলকাতা : ওয়েস্ট বেঙ্গল ফিল্ম জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের বিচারে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রের পুরস্কার পেল ‘সিনেমাওয়ালা’। শ্রেষ্ঠ অভিনেতা প্রসেনজিত চট্টোপাধ্যায় ও শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হলেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। আর শ্রেষ্ঠ পরিচালকের শিরোপা গেল কৌশিক  গঙ্গোপাধ্যায়ের কাছে। 

বাংলা সিনেমার একঝাঁক প্রতিভাকে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য ওয়েস্ট বেঙ্গল ফিল্ম জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে এই পুরস্কার প্রদান চালু করা হয়। এর পাশাপাশি অ্যাসোসিয়েশনের নজরে থাকে নতুন সেই সব প্রতিভা, যাঁরা অবিরাম কাজ করে চলেছেন বাংলা সিনেমার মান বাড়ানোর জন্য।

‘সিনেমাওয়ালা’ ছবির জন্য কৌশিক  গঙ্গোপাধ্যায়কে শ্রেষ্ঠ পরিচালক হিসেবে ‘শ্রী হীরালাল সেন স্মৃতি পুরস্কার’ দেওয়া হল ।

prasenjit

‘ক্ষত’-র কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেতার সম্মান পেলেন প্রসেনজিৎ  চট্টোপাধ্যায়।rituparna

‘প্রাক্তন’ ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ নায়িকার পুরস্কার গেল ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের হাতে।

শ্রেষ্ঠ সহ-অভিনেতা ঋত্বিক চক্রবর্তী, ছবি ‘সাহেব বিবি গোলাম’।

শ্রেষ্ঠ সহ-অভিনেত্রী হলেন অপরাজিতা আঢ্য, ছবি ‘প্রাক্তন’।anindya

শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালক হিসাবে সম্মানিত হলেন অনুপম রায় এবং অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়, ছবির নাম ‘প্রাক্তন’।

nochiketa

শ্রেষ্ঠ গায়কের পুরস্কার পেলেন নচিকেতা চক্রবর্তী, ‘জুলফফিকর’-এর জন্য।

শ্রেষ্ঠ গায়িকা হলেন ইমন চক্রবর্তী, ‘প্রাক্তন’ ছবির জন্য।

আবহসঙ্গীতের জন্য শ্রেষ্ঠত্বের পুরস্কার গেল বিক্রম ঘোষের হাতে। ‘ঈগলের চোখ’ ছবিতে তাঁর অবদানের জন্য।  

এ ছাড়াও, সবচেয়ে প্রতিশ্রুতিমান পরিচালক নির্বাচিত হন  প্রতিম ডি গুপ্তা। ‘সাহেব বিবি গোলাম’ ছবি পরিচালনার জন্য। পান ‘ঋতুপর্ণ ঘোষ স্মৃতি পুরস্কার’।

সবচেয়ে প্রতিশ্রুতিমান অভিনেতা হলেন অনির্বাণ ভট্টাচার্য (ঈগলের চোখ)।

sohini

সবচেয়ে প্রতিশ্রুতিমান অভিনেত্রী সোহিনী সরকার (সিনেমাওয়ালা)।

এ বছরের সবচেয়ে জনপ্রিয় ছবি ‘প্রাক্তন’।

সবচেয়ে জনপ্রিয় অভিনেতা দেব (জুলফিকর)।

শ্রেষ্ঠ কৌতুক অভিনেতা বিশ্বনাথ বসু (প্রাক্তন)।

শ্রেষ্ঠ সম্পাদক শুভজিত সিংহ (সিনেমাওয়ালা)।

শ্রেষ্ঠ গীতিকার অনুপম রায় (প্রাক্তন)।

শ্রেষ্ঠ শিল্প পরিচালক নীতিশ রায় (প্রাক্তন)।

শ্রেষ্ঠ শব্দ পরিকল্পনায় অনির্বাণ সেনগুপ্ত (সিনেমাওয়ালা)।

শ্রেষ্ঠ পোশাক পরিকল্পনায় সুলগ্না।

 

এ বছর ‘লাইফ টাইম অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ তুলে দেওয়া হয় স্বর্ণযুগের অভিনেত্রী মাধবী মুখোপাধ্যায়ের হাতে। এই সম্মান পেয়ে তিনি জানালেন, এই পুরস্কার পেয়ে খুবই উচ্ছ্বসিত তিনি।

এ দিনের অনুষ্ঠানে সঞ্চালকের ভূমিকায় দেখা যায় প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, রাজ চক্রবর্তী, শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়, অরিন্দম শীল, অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়, কমলেশ্বর  মুখোপাধ্যায়, কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়  এবং  সুমন ঘোষ-সহ অনেককেই।

সিনেমায় সম্মান প্রদানে বাংলার সাংবাদিকরা স্বাধীনতাপ্রাপ্তির অনেক আগে থেকেই সক্রিয় উদ্যোগ নিয়েছিলেন। দেবকী কুমার বসু থেকে সত্যজিৎ রায়, কানন দেবী থেকে অপর্ণা সেনদের প্রথম স্বীকৃতি দেওয়া হয় এই মঞ্চেই। মাঝে কিছু বছর বন্ধ থাকলেও ফের সেই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে এ বছর। ওয়েস্ট বেঙ্গল ফিল্ম জার্নালিস্ট আসোসিয়েশনের এই অনুষ্ঠানে সম্মান জানানো হল সেরার সেরাদের। সব মিলিয়ে  এ দিন  এক  জমকালো অনুষ্ঠানের সাক্ষী থাকল শহর কলকাতা।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here