প্রতিরক্ষা অস্ত্র কেনার তালিকায় শীর্ষে ভারত, জানাল স্টকহোলমের সংস্থা

0
111

নয়াদিল্লি: সাতাশ বছরে সর্বোচ্চ মাত্রায় পৌঁছোল বিশ্বব্যাপী প্রতিরক্ষা অস্ত্র কেনার পরিমাণ। অস্ত্র কেনা দেশগুলির তালিকার শীর্ষে রয়েছে ভারত। এমনই জানা গিয়েছে স্টকহোলমের একটি কেন্দ্রের প্রকাশ করা একটি রিপোর্টে।

এই রিপোর্টে ‘স্টকহোলম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইনস্টিটিউট’ (এসআইপিআরআই) জানিয়েছে, ২০১২ থেকে ২০১৬-এর মধ্যে আমদানি হওয়া মোট অস্ত্রের তেরো শতাংশই আমদানি করেছে ভারত। তালিকায় ভারতের পরে রয়েছে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরশাহি, চিন এবং আলজেরিয়া। উল্লেখ্য, ২০০৭ থেকে ২০১১ পর্যন্ত মোট আমদানি হওয়া অস্ত্রের ৯.৭ শতাংশ কিনেছিল ভারত। সেই সময়কার তালিকাতেও শীর্ষ স্থানেই ছিল ভারত।

আইসিস দমন হোক কি সিরিয়া-ইয়েমেনে বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ, মধ্য প্রাচ্যের অধিকাংশ দেশই কোনো না কোনো ভাবে দ্বন্দে জড়িত। রিপোর্টে দেখা গেছে, ২০০৭ থেকে ’১১-এর নিরিখে ২০১২ থেকে ’১৬ পর্যন্ত প্রায় ২১২ শতাংশ বেড়েছে সৌদি আরবের অস্ত্র কেনার পরিমাণ।

এক দিকে পাকিস্তান এবং অন্য দিকে চিন। ভারতের সীমান্তে নজরদারি রাখতে হয় সব সময়েই। চিনের সঙ্গে ছায়াযুদ্ধ তো লেগেই আছে। সার্জিকাল স্ট্রাইক থেকে আন্তঃসীমান্ত সন্ত্রাসবাদ, পাকিস্তানের সঙ্গে ঝামেলাও নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার। এ জন্যই প্রতিরক্ষা-সামগ্রী কেনার তালিকার ভারত শীর্ষে বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।

এসআইপিআরআইয়ের গবেষণাবিদ সাইমন ওয়েজম্যান মনে করেন, নিজস্ব দ্রব্য কেনার জন্য যতই ভারতে ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ প্রকল্প চালু করা হোক, প্রতিরক্ষা-সামগ্রীর জন্য ভারতকে এখনও বিদেশের ওপরই ভরসা করে থাকতে হচ্ছে। তিনি বলেন, “ভারতীয় কোম্পানিকে দিয়ে অস্ত্র তৈরির জন্য অনেক টাকা খরচ করলেও, সেটা ফলপ্রসূ হয় না।”

নিজেদের অস্ত্র ভারত নিজেরা কেন তৈরি করতে পারে না, তার প্রসঙ্গও তুলেছেন ওয়েজম্যান। মূলত লাল ফিতে, রাষ্ট্রীয় কোম্পানির ওপরে অত্যধিক ভরসার ফলেই নিজের অস্ত্র নিজেরা তৈরি করতে পারে না ভারত। এই জন্যই প্রতিরক্ষা-সামগ্রীর জন্য বিদেশের ওপর বেশি ভরসা করতে হয় ভারতকে। মূলত রাশিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইজরায়েলের কাছ থেকেই প্রতিরক্ষা-সামগ্রী আমদানি করে ভারত। অন্য দিকে প্রতিরক্ষা-সামগ্রীর ক্ষেত্রে চিন বাইরে থেকে আমদানি না করে ক্রমে নিজেদের ওপরই নির্ভরশীল হয়ে উঠছে।

ভারতের প্রতিরক্ষার মূল চ্যালেঞ্জ দু’টি — সন্ত্রাসবাদ দমন এবং সীমান্তে নজরদারি। তার জন্য যে প্রতিরক্ষা সামগ্রী প্রয়োজন, তা তৈরি করার মতো পরিস্থিতি এখনও ভারতের নেই, এমনই মত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের প্রাক্তন অর্থনৈতিক উপদেষ্টা অমিত কৌশিশের। যদিও ওয়েজম্যান এবং কৌশিশ, দু’জনেরই মত, সামরিক অস্ত্র তৈরি করার ক্ষেত্রে যদি ভারতীয় সংস্থাগুলির ওপর ভরসা করা যায় তা হলে তা ভারতের ক্ষেত্রেই ভালো হবে।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here