পাকিস্তানে কলন্দরের সমাধিস্থলে আত্মঘাতী মানববোমায়
নিহত ১০০, পাল্টা অভিযানে নিহত ৩৯ জঙ্গি

0
124

ইসলামাবাদ: ‘দমা দম মস্ত কলন্দর’ শীর্ষক বহুল প্রচারিত কাওয়ালি গানের মধ্য দিয়ে যে সুফি সাধক জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে  এই উপমহাদেশের আপামর মানুষের কাছে অমর হয়ে রয়েছেন, সেই লাল শাহবাজ কলন্দরের সমাধিস্থলে আত্মঘাতী মানববোমায় প্রাণ হারালেন অন্তত ১০০ জন, আহত হয়েছেন প্রচুর মানুষ। বিস্ফোরণ ঘটেছে  বৃহস্পতিবার রাতে। আইএস এই বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করেছে। প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে এই সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সমগ্র পাকিস্তানকে এক যোগে রুখে দাঁড়াতে বলেছেন।

ঘটনার পরই পাল্টা জঙ্গি-দমন অভিযান শুরু করে পাক নিরাপত্তাবাহিনী। এই অভিযানে অন্তত ৩৯ জন জঙ্গি নিহত হয়েছে বলে নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে।

১২-১৩ শতকের সুফি সাধক  লাল শাহবাজ কলন্দরকে সমাহিত করা হয় করাচি থেকে প্রায় ২০০ কিমি উত্তরপূর্বে সিন্ধু প্রদেশের সেহওয়ান শহরে। তাঁর সেই সমাধিস্থলে পরবর্তী কালে গড়ে ওঠে উপাসনালয়। প্রতি বৃহস্পতিবার সেই উপাসনালয়ে দলে দলে ভক্তরা জড়ো হন প্রার্থনা ও সুফি নৃত্য ‘ধমল’-এ যোগ দেওয়ার জন্য। সেইমতো আজ বৃহস্পতিবার রাতেও ‘ধমল’ চলছিল। ঠিক সেই সময়ে ঘাতক সোনালি ফটক দিয়ে ভিতরে ঢোকে। প্রথমে সে একটি গ্রেনেড ছোড়ে। সেটি ফাটেনি। তাঁর পরেই আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটায়। এই খবর দিয়েছেন এসএসপি  জামশোরো তারিক উইলিয়াত। সেহওয়ান থানার এসএইচও রসুল বকশ্‌ জানান, বিস্ফোরণে ১০০ জনের মতো নিহত হয়েছেন। এঁদের মধ্যে আছেন অনেক মহিলা, শিশুও রয়েছে। বিস্ফোরণের সময় উপাসনালয়ে কয়েক শো পুণ্যার্থী উপস্থিত ছিলেন।

আমাক সংবাদ সংস্থা মারফত আইএস এই বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করে বলেছে, আত্মঘাতী মানববোমা সিন্ধু প্রদেশের এক ‘শিয়া জমায়েতে’ বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে।

হায়দরাবাদের কমিশনার কাজি শহিদ জানিয়েছেন, সেহওয়ান শহরটি হায়দরাবাদ থেকে ১৩০ কিমি দূরে, একটি প্রত্যন্ত এলাকায়। হায়দরাবাদ থেকে  চিকিৎসক দল অ্যাম্বুল্যান্স ও অন্যান্য গাড়ি নিয়ে সেহওয়ানে গিয়েছেন। ওই এলাকার সমস্ত হাসপাতালে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। বিস্ফোরণস্থলে উদ্ধারকাজ চলছে। নিহত ও আহতদের নিয়ে যাওয়ার জন্য রাতে উড়তে পারে এমন হেলিকপ্টারের ব্যবস্থা করতে সেনাবাহিনীকে অনুরোধ করা হয়েছে।    

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here