আপনার এলাকাতেই কি লুকিয়ে নীরজার হত্যাকারী? ছবি দেখুন, সনাক্ত করলেই ৫০ লক্ষ ডলার পুরস্কার!

0
neerja bhanot

ওয়েবডেস্ক: ইউ এস ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন বৃহস্পতিবার প্রকাশ্যে নিয়ে এল চার দুষ্কৃতীর ছবি। এই চার জনই ১৯৮৬ সালের প্যান অ্যাম বিমান হাইজ্যাকের ঘটনার সঙ্গে যুক্ত। যে ঘটনায় বিমানসেবিকা নীরজা ভানট-সহ ২০ জন যাত্রীর মৃত্যু হয়।

এফবিআই জানিয়েছে, এই চার দুষ্কৃতীর নাম ওয়াদুদ মহম্মদ হাফিজ-অল তুর্কি, জামাল সইদ আবদুল রহিম, মহম্মদ আবদুল্লাহ খলিল হুসেন অররাহায়ল এবং মহম্মদ আহমেদ অল-মুনাবর।

neerja bhanot

বিজ্ঞাপন

এফবিআই এই চার দুষ্কৃতীর ছবি তৈরি করেছে তাদের ল্যাবরেটরিতে। যাত্রীদের মুখ থেকে শুনে দুষ্কৃতীদের চেহারার একটা ছবি তৈরি করিয়েছিল তারা। এর পর ২০০০ সালে ওই চার দুষ্কৃতীর ছবিও তাদের হাতে পড়ে। এর পর সংস্থা থেকে তৈরি স্কেচ আর ফটোগ্রাফের উপর ভিত্তি করে এখন বয়স বেড়ে গিয়ে তাদের কী রকম দেখতে হয়েছে, তার ছবি তৈরি করা হয়েছে। এফবিআই জানিয়েছে, এ ব্যাপারে তারা অত্যাধুনিক এজ-প্রসেসিং প্রযুক্তির সাহায্য নিয়েছে।

আরও জানানো হয়েছে, এই চার অপরাধীর সম্পর্কে যে কোনো রকম খোঁজখবর দিতে পারলেই সংবাদদাতাকে ৫০ লক্ষ মার্কিন ডলার দিয়ে পুরস্কৃত করা হবে।

১৯৮৬ সালে প্যান অ্যাম সংস্থার ৭৩ নম্বর ফ্লাইট মুম্বই থেকে করাচি পৌঁছোয় হাইজ্যাক হয়ে। বিমানসেবিকা নীরজা ভানট সেই সময়ে যাত্রীদের প্রাণ বাঁচানোর যথাসাধ্য চেষ্টা করেছিলেন। পরিণামে গুলিবিদ্ধ হয়ে তাঁকে প্রাণ দিতে হয়। তাতেও অবশ্য শেষ রক্ষা হয়নি। এই ঘটনার কথা এখন সোনম কাপুর অভিনীত নীরজা ছবির সৌজন্যে সকলেরই জানা।

ভারত সরকার মরণোত্তর অশোক চক্র দিয়ে অসম সাহসিকতার জন্য নীরজার ঋণ শোধ করে। কিন্তু অপরাধীরা আজও ফেরার। আশা করা যায়, এ বার হয়তো তাদের সনাক্ত করা যাবে। প্রকৃত অর্থেই শোধ করা যাবে নীরজা ভানটের প্রাণত্যাগের ঋণ।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here