ভারতের ৫৭ জন ধনকুবেরের সম্পদ দেশের জনসংখ্যার ৭০ শতাংশের
সম্পদের সমান: অক্সফাম

0
93

দাভোস (সুইৎজারল্যান্ড): টুনটুনি বলেছিল, রাজার ঘরে যে ধন আছে, আমার ঘরেও সে ধন আছে। পরিপ্রেক্ষিতটা কিছুটা পাল্টে নিলে ভারতের ৭০ শতাংশ মানুষ সমস্বরে দিতে পারবেন এই শ্লোগান। তবে কিনা, এখানে রাজা একজন নয়, ৫৭ জন ভারতীয় বিলিয়নেয়ার। শুধু ভারতেই নয়, সারা পৃথিবীর ছবিটাই মোটামুটি একইরকম।  দারিদ্র বিরোধী সংস্থা অক্সফামের একটি রিপোর্টে প্রকাশ, ভারতের ৫৭ জন ধনকুবেরের মোট সম্পত্তির পরিমাণ দেশের ৭০ শতাংশ মানুষের সম্পদের সমান। আর দুনিয়ার অর্ধেক জনসংখ্যার মিলিত সম্পদের সম পরিমাণ সম্পদের মালিক আটজন ধনীতম ব্যক্তি। 

ভারতের নামী দামি তথ্য-প্রযুক্তি সংস্থার সিইওরা, সংস্থার যেকোনো সাধারণ কর্মীর চেয়ে গড়ে ৪১৬ গুণ বেশি আয় করেন। এই সত্যিটাই প্রতিফলিত হয় দেশের সম্পদ বণ্টনের ক্ষেত্রে। দেশের মোট সম্পদের ৮০ শতাংশই ভোগ করেন মাত্র ১০ শতাংশ মানুষ। সম্পদশালীর তালিকায় সবচেয়ে ওপরে থাকা ১ শতাংশ মানুষের হাতে রয়েছে মোট সম্পদের ৫৮ শতাংশ।

বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের বার্ষিক সভায় এই রিপোর্ট প্রকাশ করেছে অক্সফাম। সংস্থার দাবি গত বছরের তুলনায় ধনী-গরীবের মধ্যে পার্থক্য এখন অনেকটাই বেশি। উল্লেখ্য, গত বছর এই সময়ে অক্সফামের প্রকাশ করা রিপোর্টে দেখা গিয়েছিল অর্ধেক মানুষের সম্পদের সমান সম্পদ রয়েছে ৬২ জনের কাছে। সেই তুলনায় এ বছরের পরিসংখ্যান অনেক বেশি বিপদসঙ্কুল। এ রকম চলতে থাকলে সমাজে চূড়ান্ত বিশৃঙ্খলা দেখা দেবে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

সংস্থার এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর উইনি বিয়ানিমা বলেন, “প্রতি ১০ জন মানুষের মধ্যে একজনের দিন যেখানে মাত্র ২ ডলারে (কমবেশি ১৩০ টাকা) কাটে, সেখানে এই অল্পসংখ্যক মানুষের কাছে এত পরিমাণ সম্পদ দেখা খুব অশোভন”। তিনি আরও বলেন, “এই পার্থক্য প্রচুর মানুষকে দারিদ্রতার দিকে ঠেলে দিচ্ছে, ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে গণতন্ত্রও।”

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here