ব্রিটিশ পার্লামেন্টের বাইরে হামলা, পুলিশ ও আততায়ী-সহ হত ৫

0
105

লন্ডন: আততায়ীর হামলায় কেঁপে উঠল লন্ডন। ব্রিটিশ পার্লামেন্টের বাইরে দু’টি পৃথক হামলার ঘটনা ঘটেছে। প্রথমে ওয়েস্টমিনস্টার ব্রিজের ওপর বেপরোয়া ভাবে গাড়ি চালিয়ে বেশ কয়েক জন মানুষকে ধাক্কা দেওয়া হয়। এই ঘটনায় নিহত হন এক মহিলা-সহ অন্তত ৩ জন। এর পর পার্লামেন্টের বাইরে ছুরিকাহত হয়ে নিহত হন এক পুলিশকর্মী। আততায়ীকে ‘বিগ বেন’-এর কাছে গুলি করে মারে পুলিশ। এই খবর দিয়েছে লন্ডন পুলিশ। লন্ডনের স্থানীয় সময় বিকেল পৌনে ৩টেয় এই হামলা ঘটে। এখনও পর্যন্ত কেউ হামলার দায়িত্ব স্বীকার করেনি।   

ঘটনার সময় পার্লামেন্টের হাউস অব কমনস্‌-এ অধিবেশন চলছিল। অধিবেশন বন্ধ করে পার্লামেন্টের দরজা বন্ধ করে দেন নিরাপত্তারক্ষীরা। এমপিরা সবাই নিরাপদে রয়েছেন। নিরাপদে আছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে-ও। পাঁচ জনের মৃত্যু ছাড়াও এই ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ৪০ জন বলে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত ডেপুটি কমিশনার মার্ক রোলি বলেছেন।

ঘটনাটিকে সন্ত্রাসবাদী হামলা, দাবি করছে পুলিশ। গোটা ব্রিটেন জুড়ে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। হোয়াইট হাউস থেকে ঘটনাটির সম্পর্কে খোঁজখবর রাখছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

বিজ্ঞাপন

ঘটনার বিবরণে জানা গিয়েছে, হামলাকারী পার্লামেন্টের কাছেই ওয়েস্টমিনস্টার সেতুর উপর ছাই রঙা একটি হাউন্ডাই গাড়ি বেশ কিছু পথচারীর উপর দিয়ে চালিয়ে দেয়। এর পর গাড়িটি নিয়ে গিয়ে সেতুর রেলিং-এ ধাক্কা মারে। ইতিমধ্যে বহু পথচারীকে পিষেও দেয়। তার পরই হামলাকারী পার্লামেন্ট ভবনের ফটক দিয়ে ঢুকে পড়ে এবং একজন পুলিশ অফিসারকে ছুরি মারে।  

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, লোকটি হাতে ছুরি ধরা অবস্থায় দ্বিতীয় আরেকজন পুলিশ অফিসারের দিকে এগিয়ে গেলে পুলিশ তাকে গুলি করে। 

জনসাধারণকে ওই এলাকায় যেতে বারণ করা হয়েছে এবং কাছাকাছি ওয়েস্টমিনস্টার পাতাল রেল স্টেশনও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। 

তবে প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, হামলাকারীরা সংখ্যায় ২ জন। বিবিসির ড্যানিয়েল স্যানফোর্ড বলছেন, প্রত্যক্ষদর্শীরা তাঁদের বিবরণে একজন ‘টাকমাথা শ্বেতাঙ্গ’ ব্যক্তি এবং আরেক জন ‘অল্প দাড়িওয়ালা কৃষ্ণাঙ্গ’ ব্যক্তির জড়িত থাকার কথা বলেছেন।

ড্যানিয়েল স্যানফোর্ড জোর দিয়ে বলেছেন, যদিও বিষয়টি নিশ্চিত করা যাচ্ছে না, কিন্তু এই দু’ জনই ওয়েস্টমিনস্টার ব্রিজের উপর দিয়ে খুবই দ্রুত গতিতে গাড়ি চালিয়ে যায় এবং আনুমানিক আটজন পথচারীকে ধরাশায়ী করে। এর অল্পক্ষণের মধ্যেই গাড়িটি সংসদ ভবনের রেলিং-এ গিয়ে ধাক্কা মারে।

ব্রিটেনের মুসলিম কাউন্সিল এক বিবৃতি দিয়ে এই হামলার নিন্দা করেছে।  কাউন্সিল তাদের বিবৃতিতে বলেছে, ওয়েস্টমিনস্টারের ঘটনায় তারা স্তম্ভিত ও মর্মাহত। তারা এই হামলার নিন্দা করছে। হতাহতদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে কাউন্সিল বলেছে, প্যালেস অফ ওয়েস্টমিনস্টার দেশের গণতন্ত্রের মূল স্তম্ভ। দেশ ও দেশের জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে তারা যাতে কাজ করতে পারে সেটা নিশ্চিত করতে হবে।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here