সৌর ট্রেনের ‘ট্রায়াল রান’-এর জন্য প্রস্তুত যোধপুর

0
95

খবর অনলাইন: পুরোপুরি সৌরশক্তি চালিত ট্রেন বলা যায় না। তবে সে পথে অনেকটাই এগিয়ে গেল ভারতীয় রেল। জীবাশ্ম-জ্বালানির উপর নির্ভরতা কমাতে ট্রেন টানা ছাড়া বিদ্যুৎ-সংক্রান্ত সব কাজই হবে সৌরশক্তিতে। ট্রেন প্রস্তুত। কয়েক দিনের মধ্যেই ‘ট্রায়াল রান’ হবে রাজস্থানের যোধপুরে। উত্তর পশ্চিম রেলের (এনডবলুআর) তরফে এই খবর দেওয়া হয়েছে। এই সৌর ট্রেন যাত্রীট্রেন হিসাবে চলবে। তবে কোন রুটে চলবে তা ‘ট্রায়াল রান’-এর ঠিক হবে।

নয়ডার একটি কোম্পানি ছ’ কামরার একটি ডেমু (ডিজেল ইলেকট্রিক মাল্টিপল ইউনিট) রেক ইতিমধ্যেই তৈরি করেছে। প্রতিটি কামরার ছাদে থাকছে ১২টি করে সোলার প্যানেল। প্রতিটি প্যানেল ‘আদর্শ’ অবস্থায় ৩০০ ওয়াট করে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারে। ফলে ১২টি প্যানেল ৩.৬ কিলোওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করবে। ট্রেন চলবে ডিজেল ইঞ্জিনেই। কিন্তু এসি ও নন-এসি কামরার ভেতরে এসি চালাতে, সিএফএল আলো জ্বালাতে ও পাখা চালাতে যে বিদ্যুৎ লাগে তা সরবরাহ করবে ওই সোলার প্যানেল।

ট্রেনের বিদ্যুৎব্যবস্থায় সৌরশক্তি ব্যবহার করা হলে রেকপ্রতি বছরে ২৩৯ টন কার্বন ডাই-অক্সাইড উদ্‌গিরণ কম হবে এবং আনুমানিক ৯০৮০০ লিটার ডিজেল বাঁচানো সম্ভব হবে বলে ভারতীয় রেলের শীর্ষ কর্তারা জানান।

বিজ্ঞাপন

তবে ভারতীয় রেলে সৌরশক্তির ব্যবহার এই প্রথম নয়। গত বছর রেওয়ারি- সীতাপুর প্যাসেঞ্জার ট্রেনে ৩.৯ লক্ষ টাকা খরচ করে সোলার প্যানেল লাগানো হয়। তা পরীক্ষামূলক ভাবে চলছে। কাংড়া ভ্যালি শাখায় পাঠানকোট-যোগিন্দরনগর রুটে দু’টি ট্রেনে সোলার প্যানেলে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হচ্ছে।

চেন্নাইয়ের ৩০টি এবং অমৃতসরের ৫০টি ডেমু কোচে লাগানোর জন্য ইতিমধ্যেই সোলার প্যানেল পাঠানো হয়েছে বলে নয়ডার ওই কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here