লালহলুদ সমর্থকদের স্বস্তি দিয়ে পয়েন্ট খোয়াল মোহনবাগানও

0
106

মোহনবাগান-০    মুম্বই এফ সি-০       

মুম্বই: শিলিগুড়িতে ইস্টবেঙ্গল পয়েন্ট খুইয়েছে, খবর পাওয়ার পরই মাঠে নেমেছিল সঞ্জয় সেনের ছেলেরা। উল্টোদিকে আই লিগে সবচেয়ে নীচে থাকা দল। শুরুটা দেখে মনে হচ্ছিল বুঝি থই পাবে না মুম্বই এফ সি। তিন মিনিটের মধ্যে গোল পোস্টে বল লাগল। ১৩ মিনিটে সনির দুর্দান্ত শট ততোধিক দারুণ সেভ করলেন সন্তোষ কাশ্যপের দলের গোলকিপার। কিন্তু ১৮ মিনিটের মাথায় এমন একটা ঘটনা ঘটল, যার পর থেকে ছন্দ হারিয়ে ফেলল গোটা সবুজ মেরুন দলটাই। থই সিং-এর গোল লক্ষ করে শট এক স্ট্রাইকারের কাঁধে লেগে ঢুকে গেল সবুজমেরুনের তেকাঠিতে। দেবজিৎ বলটা দেখতেই পাননি। প্রায় ৩০ সেকেন্ড স্কোরবোর্ডে মুম্বই-১, মোহনবাগান-০। গোল বাতিল হল বটে কিন্তু ম্যাচ থেকে মোহনবাগান যেন হারিয়ে গেল। ৩২ মিনিটে হলুদ জার্সিদের হেড গোলপোস্টে লাগল। ৩৫ মিনিটে দারুণ ফ্রিকিক সেভ করলেন দেবজিৎ। হাফটাইমের ঠিক আগের দু’মিনিট মোহন গোলের মুখে উঠল হলুদ ঝড়। গোল যে খেতে হল না সঞ্জয় সেনের ছেলেদের, তাতে হাঁফ ছেড়েছিল নিশ্চয় গোটা দল।  

কুপারেজের ছোটো মাঠে ধাক্কাধাক্কি শুরু হল হাফটাইমের পর। কিছুটা ধরে খেলতে শুরু করল মোহনবাগান। নামলেন বলবন্ত, জেজে। অন্যদিকে ডিফেন্সে ভিড় বাড়িয়ে দিল মুম্বই এফসি। সনি, ডাফিরা আক্রমণের ঝাঁঝ বাড়ালেও গোটা দলটা যে বেশ ক্লান্ত খেলা থেকে পরিষ্কার। চোটের জন্য খেলা নিয়ে অনিশ্চয়তা থাকলেও সনি কিন্তু নজর কাড়লেন এদিনও। খেললেন পুরো ৯০ মিনিট। কাতসুমি, ডাফিও চেষ্টা করেছেন। তবু কিসের যেন অভাব। গোল মুখে পেনিট্রেশন হারাচ্ছে সঞ্জয় সেনের ছেলেরা।

পরপর দুটো ম্যাচে প্রতিপক্ষ দলের গোলকিপার ‘হিরো অফ দ্য ম্যাচ’। কিন্তু তা দিয়ে সবুজ মেরুন সমর্থকদের চিঁড়ে ভিজবে না। এখনও দ্বিতীয় স্থানে। খুব ভেঙে পড়ার মতো কিছু হয়নি। কিন্তু আই লিগের সবচেয়ে নিচের দলের বিরুদ্ধে পয়েন্ট খোয়ানোর মাশুল লম্বা দৌড়ে গুনতে হতেই পারে।ম্যাচ শেষে সবচেয়ে নীচ থেকে ৯ নম্বরে উঠে এলেন জালালুদ্দিন, অ্যালেক্স, কাট্টিমানিরা।

৯ ম্যাচ খেলে ইস্টবেঙ্গলের ২১ পয়েন্ট। মোহনবাগানের ৮ ম্যাচে ১৮।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here