মোহনবাগানের জয়রথে চালকের আসনে বসতে প্রস্তুত সনি

0
117

সানি চক্রবর্তী :

অনুশীলন সেরে বেরোনোর পথে তাঁকে ঘিরে ধরলেন ক্লাবতাঁবুতে উপস্থিত প্রায় সব সমর্থক। সেলফির আবদার মেটানোর মাঝেই রব উঠল ‘সনি…সনি’। সমর্থকদের আশ্বস্ত করার পরে গাড়িতে চেপে বসেই দেখলেন, হাওয়া কম গাড়ির চাকায়। কিছুক্ষণ গার্সিয়া ও বাকি কয়েক জনের জন্য অপেক্ষা করে গাড়ি নিয়ে গেলেন বাবুঘাটের দিকে। ওখান থেকে চাকায় হাওয়া দিয়ে রওনা হবেন বলে। পুরো ব্যাপারটার সঙ্গেই যেন সবুজ-মেরুন দলের পরিস্থিতির প্রতীকি মিল। সঞ্জয় সেনের দলের গাড়ির চাকার হাওয়াও কিছুটা কম হলেও তা এগোচ্ছিল ঠিকই। এ বার দলের প্রাণভোমরা যেন এসে গিয়েছেন। বাকিদের গাড়িতে তুলে নিজেই স্টিয়ারিং ধরেছেন ফাঁকফোকর সামলে সামনের রাস্তায় দুরন্ত গতিতে গাড়ি ছোটাতে।

দুপুরে আইএফএ অফিসে গিয়ে সইয়ের পরে ফের একবার নিজের মুখেই সে কথা জানিয়ে বলে দিয়েছেন, “সমর্থকদের ভালোবাসার টানেই থেকে যাওয়া। ওদের মুখে হাসি ফোটাতে আই লিগটা জিততে চাই।” বাগান-জনতাও মঙ্গলবারের ম্যাচেই সনিকে মাঠে নামতে দেখতে চান। সনির প্রত্যাবর্তনের জেরে প্রতিপক্ষ মিনার্ভা যেন ভাবনাতেই নেই সমর্থকদের। কোচ তাকে প্রথম একাদশে খেলাবেন কিনা সন্দেহ বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন। তবে সনিকে কি তিনি বসিয়ে রাখবেন রিজার্ভ বেঞ্চে? কোচ সঞ্জয় কী করবেন তা জানতে আরও কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে হলেও সমর্থকরা কিন্তু সনিকে ঘিরেই প্রত্যাশার ফানুস তৈরি করছেন। একজন সমর্থক তো বলেই ফেললেন, “সনি নিজেই বলেছে আমি ফিট। খেলানোটা কোচের উপরে। ওর কথার পরেই তো দল তৈরি হয়ে গিয়েছে।”

বিজ্ঞাপন

মিনার্ভা ম্যাচে সনির পাশাপাশি অভিষেক হতে পারে ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার এডুয়ার্ডোর। চোট থাকায় কিংশুক এই ম্যাচে নেই জানিয়ে দিয়েছেন সঞ্জয় সেন। অনুশীলনে এডুকে আনাসের পাশে টানা অনুশীলন করতে দেখা গেল, সঙ্গে দীর্ঘদেহী ডিফেন্ডারটিকে দেখা গেল ডেড বল সিচুয়েশনে বিপক্ষ বক্সে পৌঁছে যেতে। হালকা চোটের জেরে মাঝমাঠে কেলবেন না শেহনাজও। সে ক্ষেত্রে শৌভিক চক্রবর্তীর সঙ্গী হতে পারেন প্রণয়। কারণ এক ম্যাচের নির্বাসনের পরে দলে ফিরতে কোনো অসুবিধা নেই শুভাশিসের। অনূর্ধ্ব-২২ কোটায় আগের ম্যাচে ভালো খেলা রেইনিয়াকেও সম্ভাবনা থেকে বাদ দেওয়া যাচ্ছে না। সে ক্ষেত্রে মাঝমাঠে শৌভিক চক্রবর্তী থাকবেন না, বদলে লেফট ব্যাকে খেলতে পারেন শৌভিক ঘোষ।

জ্বরে কাবু হয়ে দু’দিন অনুশীলন করতে পারেননি বলবন্ত। এ দিন অনুশীলনেও ডাফির সঙ্গী হয়েছিলেন জেজে। তবে বলবন্তের খেলতে কোনো অসুবিধা হবে না বলেই জানালেন কোচ সঞ্জয় সেন। অন্য দিকে, অনেকটাই ম্যাচফিট হয়ে ওঠা জেজে এখনও নিশ্চিত নন প্রথম একাদশে স্থান পাবেন কিনা। যদিও তা নিয়ে কোনো অভিমান নেই মিজো স্ট্রাইকারটির। বরং বলে গেলেন, “বলবন্ত সুস্থ হয়ে খেলুক সেটাই চাইব। আমি নামলে গোল করার চেষ্টা নিশ্চয়ই করব।”

তুলনামূলক দুর্বল মিনার্ভা দলের প্রশিক্ষক সুরিন্দর সিং অবশ্য পরিষ্কার স্বীকার করে নিচ্ছেন, “লড়াই করব আমরা। এক পয়েন্ট বের করতে পারলেই সেটা অনেকটা আত্মবিশ্বাস বাড়াবে ছেলেদের।” অন্য দিকে নিজের দল নিয়ে সঞ্জয় সেনের মন্তব্য, “নতুন মেশিন চালু হতে একটু সময় লাগে। একবার ভালো মতো চলে যাক, তার পর তেল খাওয়া মেশিনের মতো ছুটবে।”

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here