১০ বছরের ছেলেকে মাটিতে আছড়ে বেধড়ক মার বাবার, হাসিমুখে তা ভিডিও করল মা, তার পর?

0
4590
bengaluru

ওয়েবডেস্ক: মিথ্যা কথা নানা কারণে বাচ্চারা বলেই থাকে! ধরা পড়ে গেলে তার জন্য বরাতে জুটেও যায় দু’চারটে চড়-থাপ্পড়!

কিন্তু বেঙ্গালুরুতে এই ১০ বছরের বাচ্চা ছেলেটির সঙ্গে যা হল, কোনো দিক থেকেই কোনো কিছুর সঙ্গে তার তুলনা চলে না। মায়ের কাছে মিথ্যা কথা বলার অভিযোগে অমানবিক নির্যাতনের শিকার হতে হল তাকে।

জানা গিয়েছে, ঘটনাটি ঘটেছে মাস দুয়েক আগে। অনেক দিন ধরেই না কি ছেলেটির স্বভাব খারাপ হতে শুরু করেছিল। ছুতোয়-নাতায় সে অনবরত মিথ্যা বলত মায়ের কাছে। বার বার করে তাকে সচেতন করে দেওয়া সত্ত্বেও না কি তাঁর চৈতন্য হয়নি!

বিজ্ঞাপন

ফলে, ঘটনাটি যে দিনের, সে দিন আর ভাগ্য তার সহায় হল না। মায়ের কাছে গড়গড়িয়ে বলে যাওয়া মিথ্যা কথা শুনে ফেলল দারুণ রাগি বাবা! ব্যস, তার পর আর যায় কোথায়! মাকে ঘটনাটির ভিডিও করতে বলে ছেলেকে উত্তম-মধ্যম দিতে উদ্যত হল বাবা! যাতে পরের বার আর মারতে না হয়, স্রেফ ভিডিওটা দেখালেই কাজ চলে!

আর এই নির্মম ভাবে মারধরের জায়গা থেকেই শুরু হয়েছে ভিডিও। দেখা যাচ্ছে, একটা মোবাইল ফোনের চার্জার দিয়ে ছেলেটির হাতের পাতায়, গায়ে উন্মত্তের মতো প্রহার করে চলেছে বাবা। চিবুক ধরে তাকে তুলে ধরছে শূন্যে, আছাড়ের পর আছাড় মেরেই চলেছে!

এখানেই শেষ নয়। ভিডিওয় দেখা যাচ্ছে, এক সময় শুরু হল মাটিতে ফেলে লাথি মারার পর্ব। সঙ্গে অনর্গল কানে আসবে বাচ্চাটির কান্না আর আর্তনাদ!

বেঙ্গালুরু পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাচক্রে মাস দুয়েক আগে তোলা এই ভিডিওটি দেখে ফেলেন এলাকার এক দোকানদার। ছেলেকে নির্যাতনের এই ঘটনা শুধু ভিডিও করেই ক্ষান্ত থাকেননি দম্পতি, তা আপলোড করেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়াতেও। তার পর তিনি ওই ভিডিওটি নিয়ে দ্বারস্থ হন এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার এবং তাদের সহায়তায় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ওই দম্পতির নামে।

অভিযোগ পাওয়া মাত্রই পুলিশ ছেলেটির বাবাকে গ্রেফতার করতে কসুর করেনি। “আমরা জুভেনাইল জাস্টিস অ্যাক্টের ৮২ নম্বর ধারা অনুযায়ী ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা রুজু করেছি। এ ছাড়া ভারতীয় বিচার ধারার ৩২৩ এবং ৫০৬ নম্বর দণ্ডবিধিতে   মামলা দায়েরও করা হয়েছে”, জানিয়েছেন বেঙ্গালুরু পুলিশের পশ্চিম বিভাগের ডেপুটি কমিশনার এম এন অনুচৈত।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here