চিনের চাপ অগ্রাহ্য, অরুণাচল সফরে দলাইয়ের সঙ্গে দেখা করবেন মন্ত্রী

0

নয়াদিল্লি: দলাই লামার সঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের কোনো প্রতিনিধি দেখা করলে প্রভাব পড়বে ভারত-চিন সম্পর্কে। চিনের এই সতর্কবার্তার পরেও নিজেদের সিদ্ধান্ত থেকে পিছু হঠছে না কেন্দ্র। আগামী এপ্রিলে অরুণাচল সফরের সময়ে বৌদ্ধ ধর্মগুরুর সঙ্গে দেখা করবে কেন্দ্রের প্রতিনিধিদল।

মূলত বেজিং যাতে ক্ষুব্ধ না হয় সে জন্য এতদিন পর্যন্ত কেন্দ্রের কোনো প্রতিনিধি দলাইয়ের সঙ্গে সরকারি কোনো অনুষ্ঠানে সাক্ষাৎ করেনি। কিন্তু তিন বছর আগে ক্ষমতা দখলের পর চিন নীতিতে পরিবর্তন এনেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

এমনিতে অরুণাচল প্রদেশ নিয়ে ভারতের সঙ্গে যত ঝামেলা চিনের। তার ওপর চিনের মতে দলাই একজন বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা। তাই দলাইয়ের অরুণাচল সফর আটকানোর জন্য চেষ্টা করছিল বেজিং। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়ে দেয়, ভারত গণতান্ত্রিক দেশ, তাই যে কেউ যেখানে যেতে পারেন, তাঁকে বাধা দেওয়া যাবে না।

বিজ্ঞাপন

এই প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কিরেন রিজিজু জানান, “ধর্মীয় নেতা হিসেবেই দলাই অরুণাচল যাচ্ছেন। তাঁর ভক্তরা তাঁকে দেখার জন্য অপেক্ষা করছে। তাঁকে বাধা দেওয়ার কোনো প্রশ্নই ওঠে না।” উল্লেখ্য, অরুণাচলজাত কিরেনই দলাইয়ের অরুণাচল সফরের সময় তাঁর সঙ্গে দেখা করবেন।

চিনের তরফ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে যে, চিন-বিরোধী মঞ্চ তৈরি করতে পারেন দলাই, তাই তাঁকে যেন এই সফর না করতে দেওয়া হয়। চিন সরকারের তরফ থেকে মুখপাত্র গেং শুয়াং জানিয়েছেন, “দীর্ঘদিন ধরেই চিন-বিরোধী কাজকর্ম করে চলেছেন দলাই, সেটা ভারত-চিন সম্পর্কের পক্ষে খুবই দুর্ভাগ্যজনক।”

উল্লেখ্য, ১৯৫৯-এ চিন থেকে পালিয়ে ভারতে চলে আসেন দলাই লামা। কিন্তু ভারত-চিন সম্পর্কে যাতে কোনো প্রভাব না পড়ে সেই জন্য জনসমক্ষে দলাইকে এড়িয়েই চলতেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা। তবে তিব্বত নির্বাসিত সরকারের শীর্ষ নেতা লোবসাং সাঙ্গে বলেন, “আগে কেন্দ্রের সঙ্গে সাক্ষাৎ হত কিন্তু এখন সেটা জনসমক্ষে হয়। চিন নীতিতে কেন্দ্রের পরিবর্তন বোঝা যাচ্ছে।”

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here