বিমুদ্রাকরণের জন্য শাস্তি দেবেন না, আকুল আর্জি পঞ্জাবের বিজেপি মন্ত্রীর

0
43

অমৃতসর: নোট বাতিল তাঁর দলেরই সিদ্ধান্ত। কিন্তু তা সত্ত্বেও তিনি কি মনে করেন অধিকাংশ মানুষই সিদ্ধান্তটি মন থেকে মেনে নিতে পারেননি? না হলে কেন তিনি নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে নোট বাতিলের জন্য তাঁকে শাস্তি না দেওয়ার আবেদন করলেন? নাকি তিনি মনে মনে বুঝতে পেরেছেন যে বিমুদ্রাকরণের ফল ভালো হয়নি। ভোটে তাঁকে এর ফল ভুগতে হতে পারে।  

তিনি, পঞ্জাবের পঞ্চায়েত মন্ত্রী তথা অমৃতসর (উত্তর) বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি বিধায়ক অনিল জোশি। সামনের মাসে পঞ্জাবে ভোট। সেই ভোটের প্রচারে নিজের কেন্দ্রে একটি জনসভায় ভাষণ দেওয়ার সময় তিনি বলেন, “আমার কার্যকাল শেষ হয়েছে। আমার ভাগ্য এ বার আপনাদের হাতে। আমাকে ভোট দেওয়ার জন্য নিজের প্রতিবেশীদের কাছে আবেদন করুন। অনেকেই হয়তো আমার ওপর রেগে রয়েছেন, কারণ তাদের নোট বদল করতে হয়েছে। কিন্তু যা হওয়ার তা হয়ে গিয়েছে। বিশ্বাস করুন এর পেছনে আমার কোনো হাত ছিল না। আপনাদের অধিকারের জন্য আমি আগেও যেমন লড়েছি ভবিষ্যতেও লড়ব।”

বিমুদ্রাকরণের প্রভাব নিয়ে তিনি কি চিন্তিত? এ ব্যাপারে ওই মন্ত্রীকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি জানান, “যা প্রভাব পড়ার তার ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ পড়েই গিয়েছে, কিন্তু তা সত্ত্বেও মানুষের মন থেকে সন্দেহ দূর করার জন্যই এ কথা বলেছি।”

বিজ্ঞাপন

নির্বাচনী পোস্টারে নিজেকে ‘বিকাশ পুরুষ’ বলে দাবি করা অনিল জোশির বিরুদ্ধে তাঁর দলের অন্দরেই অভিযোগ রয়েছে। তিনি নাকি পঞ্চায়েত দফতরের টাকা শুধুমাত্র নিজের কেন্দ্রের উন্নয়নের জন্যই কাজে লাগিয়েছেন। মিত্র দল অকালি দলের সঙ্গে তাঁর সম্পর্কও মধুর নয়। যেখানে নির্বাচনী প্রচারে যাচ্ছেন বিজেপির এই নেতা, সেখানে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী প্রকাশ সিংহ বাদলের নামই উচ্চারণ করছেন না তিনি।

মিত্র দলের সঙ্গে সম্পর্ক যেমনই থাক, বিজেপির মন্ত্রী যখন বিমুদ্রাকরণ নিয়ে নেতিবাচক কথা বলেন, তখন প্রশ্ন থেকে যায় এই নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত কি দলের সবাই মেনে নিতে পেরেছেন? 

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here