শিশুদের ক্ষুধা মেটানোর ক্ষেত্রে বাংলাদেশ, নেপাল, ইরাকের থেকেও পিছিয়ে ভারত, জানাল রিপোর্ট

0
344
global hunger index

ওয়েবডেস্ক: শিশুদের ক্ষুধা মেটানোর ক্ষেত্রে ভারতের অবস্থা খুবই করুণ। এমনই জানা গেল, বিশ্বের ১১৯টি উন্নয়নশীল দেশকে নিয়ে করা একটি সমীক্ষার রিপোর্টে।

ইন্টারন্যাশনাল ফুড পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউট’-এর (আইএফপিআরআই) একটি রিপোর্টে জানা গিয়েছে, এই ১১৯টি দেশের মধ্যে ভারতের স্থান ১০০। অর্থাৎ এই সূচকে বিশ্বের ৯৯টি দেশের অবস্থা ভারতের থেকে ভালো এবং মাত্র ১৯টি দেশের অবস্থা ভারতের থেকে খারাপ।

দরিদ্র দেশ হিসেবে পরিচিত ভারতের প্রতিবেশীদের থেকেও ভারতের অবস্থা বেশ খারাপ। এই সূচকে নেপাল রয়েছে ৭২তম স্থানে, মায়ানমার ৭৭তম স্থানে, শ্রীলঙ্কা ৮৪তম স্থানে এবং বাংলাদেশ ৮৮তম স্থানে। একমাত্র পাকিস্তানের (১০৬ নম্বর স্থান) অবস্থা ভারতের থেকে খারাপ। উল্লেখ্য, গত বছর এই তালিকায় ৯৭তম স্থানে ছিল ভারত।

রিপোর্টে বলা হয়েছে, “দক্ষিণ এশিয়ার মোট জনসংখ্যার এক তৃতীয়াংশ মানুষের বাস ভারতের। তাই বিশ্ব ক্ষুধার সূচকে (জিএইচআই) ভারতের স্কোর দক্ষিণ এশিয়ার সামগ্রিক অবস্থার ওপরে প্রভাব ফেলে। ভারতের স্কোর ৩১.৪, যা ‘খুব সংকটজনক’-এর তালিকাভুক্ত।” উল্লেখ্য জিএইচআই স্কোর যদি শূন্য হয় তা হলে তাকে সব থেকে ভালো হিসেবে আখ্যা দেওয়া হয়।

এর পাশাপাশি ভারতে শিশু-অপুষ্টি নিয়েও খুব করুণ ছবি প্রকাশ করেছে এই রিপোর্ট। রিপোর্টে বলা হয়েছে, ভারতে পাঁচ বছর বা তার কমবয়সি মোট শিশুর অন্তত ২১ শতাংশের উচ্চতার সঙ্গে ওজনের সামঞ্জস্য নেই। অন্য দিকে অন্তত ৩০ শতাংশ শিশুর বয়স অনুযায়ী উচ্চতা কম।

ভারতের সঙ্গে একশো নম্বর স্থানে রয়েছে দরিদ্র দেশ হিসেবে পরিচিত জিবৌতি এবং রোয়ান্ডা। আশ্চর্যজনক হলেও সত্যি যে ইরাক এবং উত্তর কোরিয়ার অবস্থা ভারতের থেকে ভালো। যথাক্রমে ৭৮ এবং ৯৩ স্থানে রয়েছে এই দুই দেশ। এই সূচকে সব থেকে প্রথমে রয়েছে চিলে, কিউবা এবং তুরস্ক।

ভারতের পাশাপাশি সারা বিশ্বে অপুষ্টির হার নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ওই সংস্থাটি। রিপোর্টে বলা হয়েছে, “২০৩০-এর মধ্যে সারা বিশ্বে অপুষ্টি মেটানোর শপথ নেওয়া হয়েছে। কিন্তু এই মুহূর্তে বিশ্বের প্রায় দু’কোটি মানুষ দুর্ভিক্ষের মুখোমুখি। এর থেকেই বোঝা যায় এই শপথ পূরণে আমরা কতটা ব্যর্থ।”

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here