ভারত-পাকিস্তান পরমাণু যুদ্ধ প্রাণ নেবে ২ কোটির বেশি, বলছে সমীক্ষা

0
170

২০০৭ সালে ৩টি মার্কিন বিশ্ববিদ্যালয় সম্মিলিত ভাবে একটা সমীক্ষা চালিয়েছিল। সমীক্ষার বিষয়বস্তু  ছিল অনেকটা এইরকম – ভারত-পাকিস্তানের যুদ্ধ হলে কতটা ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে দুদেশের মানুষ এবং পরিবেশ। এই সময়ে দাঁড়িয়ে বিষয়টির প্রাসঙ্গিকতা এবং গুরুত্ব কোনো অংশেই কন নয়। বৃহস্পতিবার হিন্দুস্তান টাইমসে প্রকাশিত হয়েছে সেই সমীক্ষা এবং তার বিশ্লেষণ। তারই নির্বাচিত অংশ খবর অনলাইনের পাঠকদের জন্য।

১৫ কিলোটনের হিরোশিমা বোমা। একটা দুটো নয়,  ভারত আর পাকিস্তান মিলিয়ে আছে ১০০টা। ভারত আর পাকিস্তানের অস্ত্রাগারে মোট যত যুদ্ধাস্ত্র আছে তার অর্ধেক নিয়ে তারা যুদ্ধে নামলে প্রাণ হারাবেন প্রায় ২ কোটি ১০ লক্ষ মানুষ। পৃথিবীর সুরক্ষিত ওজোন স্তরের প্রায় অর্ধেক ধ্বংস হয়ে যাবে। পৃথিবীর বুকে নেমে আশা ‘পরমাণু শৈত্য’ নষ্ট করে দেবে স্বাভাবিক বৃষ্টি এবং কৃষিজমি।

ভারতীয় সেনাবাহিনী সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী সীমান্তে ইতিমধ্যে বসেছে পাকিস্তানি জঙ্গি ক্যাম্প। ভারতীয় জনতা পার্টির এক সাংসদও অধীর আগ্রহে আছেন পরমাণু আক্রমণের। ঘটনার স্রোত থেমে নেই এখানেও। পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রীও পাল্টা ইচ্ছে পোষণ করেছেন ভারতকে নিশ্চিহ্ন করার।

গত ২৩ সেপ্টেম্বর বিজেপি রাজ্যসভার সদস্য সুব্রহ্মণ্যম স্বামী বলেছেন, পাকিস্তানি জঙ্গি হামলায় যদি ১০০ জন ভারতীয়ের মৃত্যু হয়, পালটা আক্রমণে পাকিস্তানকে উড়িয়ে দেবে ভারত।

২ কোটি ১০ লক্ষ। সংখ্যাটা নেহাত কম কি? দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে প্রাণ হারানো মানুষের সংখ্যার অর্ধেক। বিস্ফোরণের প্রথম সপ্তাহেই শেষ হয়ে যেতে পারে এতগুলো প্রাণ।

ইন্টারন্যাশনাল ফিজিশিয়ানস ফর দ্য প্রিভেনশন অফ নিউক্লিয়ার ওয়র নামক সংগঠনের বিশ্লেষণ বলছে, পারমাণবিক যুদ্ধের ফলে জলবায়ুর পরিবর্তনে শুধু দুদেশই নয়, গোটা ভারতীয় উপমহাদেশের প্রায় ২০০ কোটি মানুষের জীবনে নেমে আসবে ভয়ানক দুর্ভিক্ষ।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here