বর্ষীয়ান মহিলার বুকে ১০ বার গুলি, ভিডিও ফুটেজে ধরা দিল হত্যার চাঞ্চল্যকর ঘটনা

0
1732
murder

ওয়েবডেস্ক: বাড়িতে ঢুকে এক ষাট বছর বয়সি মহিলার বুকে ১০ বার গুলি চালাল দুষ্কৃতীরা। নৃশংস এই ঘটনা ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের মেরঠে।

পুলিশ জানিয়েছে, নিচেতর কৌর নামের ওই মহিলা থাকতেন একমাত্র ছেলে বলবিন্দরের সঙ্গে। ২০১৬ সালে জমি-সংক্রান্ত বিবাদে চোখের সামনে স্বামীকে খুন হতে দেখেন তিনি। সেই হত্যাকাণ্ডের মামলা এখনও চলছে আদালতে। যার জেরে তাঁদের বেশ কিছু প্রভাবশালী আত্মীয় এখনও রয়েছেন জেলে।

জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার এই মামলার শুনানি হওয়ার কথা ছিল। আদালতে হাজিরা দেওয়ার কথা ছিল নিচেতর এবং বলবিন্দরের। কিন্তু ক্রমাগত তাঁরা পড়তে থাকেন আত্মীয়দের শাসানির মুখে। তাঁদের বলা হয়- আদালতে সাক্ষী দিতে গেলে মেরে ফেলা হবে!

কিন্তু সেই সুযোগ আর পেলেন না নিচেতর। তাঁর বাড়ির সিসিটিভি ফুটেজ দেখাচ্ছে, উঠোনে পাতা এক খাটিয়ায় শুয়ে রয়েছেন তিনি। পাশের খাটিয়ায় বিশ্রাম নিচ্ছেন আরও এক বয়স্ক মহিলা। এমন সময়ে জনা চারেক দুষ্কৃতী ঢুকে পড়ে বাড়িতে। দেশি রিভলবার দিয়ে তারা গুলি চালায় নিচেতরের বুকে। ঘটনায় অন্য মহিলা হকচকিয়ে গেলে তাঁকে শাসানো হয়, চলে যেতে বলা হয় ঘটনাস্থল থেকে।

ফুটেজে দেখা গিয়েছে, প্রথম গুলি খেয়ে খাটিয়ায় ছটফট করছিলেন নিচেতর। ওঠার চেষ্টা করছিলেন। তা দেখার পর দুষ্কৃতীরা তাঁর একেবারে কাছে চলে আসে। তার পর বার বার গুলি করতে থাকে তাঁর বুকে। এক সময়, নিথর হয়ে যায় নিচেতরের দেহ। শুধু তাই নয়, বলবিন্দরকেও অন্যত্র গুলি করে হত্যা করে দুষ্কৃতীরা।

ঘটনাটি স্বাভাবিক ভাবেই চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে রাজ্যে। জানা গিয়েছে, আইন-শৃঙ্খলা ভেঙে এই অরাজকতা ঘটতে দেওয়ার জন্য বরখাস্ত করা হয়েছে পাঁচ জন পুলিশকর্মীকে।

“আমরা ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করতে পেরেছি। তার পূর্ব অপরাধগুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আশা করা যাচ্ছে, তাড়াতাড়িই এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আলোকপাত করতে পারব আমরা। এ ছাড়া যে পাঁচ জন পুলিশ অফিসার ওই এলাকার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার কাজে নিযুক্ত ছিলেন, তাঁদের বরখাস্ত করা হয়েছে”, জানিয়েছেন পুলিশ অফিসার আনন্দ কুমার।

উপরের ভিডিওয় ক্লিক করলে দেখতে পাবেন সেই ভিডিও ফুটেজ। তবে ভিডিওটি সবার দেখার উপযোগী নয়। তাই দেখতে হবে ইউটিউব-এ নিজের মেল-আইডি দিয়ে লগ-ইন করে!

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here