আইনে বদল, শিশু দত্তক নিতে পারবেন সৎ বাবা-মা ও আত্মীয়রা

0
62

নয়াদিল্লি: এ বার থেকে সৎ-সন্তানকে দত্তক নিতে পারবেন সৎ বাবা-মা। এতদিন ‘নাবালক ন্যায় আইন ২০১৫’ অনুযায়ী, বাবা-মায়ের ছেড়ে যাওয়া শিশু বা অনাথালয়ে থাকা শিশুদেরই শুধু দত্তক নেওয়া যেত। কিন্তু এই নতুন বিধিতে বলা হল, এরা ছাড়াও কোনো আত্মীয়ের সন্তান বা স্ত্রী বা স্বামীর আগের পক্ষের সন্তান বা জৈবিক মা-বাবার দ্বারা পরিত্যক্ত শিশুকেও দত্তক নেওয়া যাবে।

আগামী ১৬ জানুয়ারি থেকে কার্যকর হবে এই নতুন আইন।

এর আগে অবধি ভারতে সৎ বাবা-মায়ের সঙ্গে সৎ সন্তানের সম্পর্কের কোনো আইনি বৈধতা থাকত না। ফলে সন্তানদের সৎ বাবা-মায়ের সম্পত্তির অংশীদার হওয়ার অধিকারও থাকত না। অন্যদিকে, বাবা-মা প্রবীণ হলে তাঁদের দেখাশোনার দায়িত্বও সৎ সন্তানদের ওপর বর্তাত না। নতুন আইনে এই সমস্যা মেটানোর চেষ্টা করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

যদিও সৎ বাবা-মায়ের সন্তান দত্তক নেওয়ার ক্ষেত্রে দত্তক গ্রহণকারী দম্পতিকে ‘চাইল্ড অ্যাডাপশন রিসোর্স ইনফর্মেশন অ্যান্ড গাইডেন্স সিস্টেম’-এ নাম নথিভুক্ত করতে হবে। থাকতে হবে শিশুটির জৈবিক অভিভাবকের যে কোনো এক জনের নামও। এ ক্ষেত্রে, দত্তক নেওয়ার বিষয়ে অন্য আর এক জন জৈবিক অভিভাবকের সম্মতিও নিতে হবে। এ ছাড়া আদালতে দত্তকের বিষয়ে আবেদন জানাতে হবে।

ঠিক একই ভাবে বাবা-মায়ের বেঁচে থাকাকালীন আত্মীয়রা দত্তক নিতে চাইলে শিশুর জৈবিক অভিভাবকের সম্মতি নিতে হবে। অথবা তাঁরা জীবিত না থাকলে শিশু কল্যাণ সমিতির কাছ থেকে দত্তকের অনুমতি নিতে হবে।  

‘নাবালক ন্যায় আইন ২০১৫’-এ আত্মীয় বলতে বাবা বা মায়ের তরফের কাকা-কাকিমা, মামা-মামি এবং ঠাকুমা-ঠাকুরদা বা দাদু-দিদার কথা বলা হয়েছে।

সেন্ট্রাল অ্যাডাপশন রিসোর্স অথারিটির সিইও লেফটেনান্ট কর্নেল দীপক কুমার বলেন, এই আইনে সব সময়েই একটা ফাঁক থেকে গিয়েছিল। আমরা সেই ফাঁকটাই বোজানোর চেষ্টা করেছি।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here