কেরলে বাঁদরের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে আত্মহত্যা মহিলার

0
79

তিরুবনন্তপুরম: ওদের ‘বাঁদরামি’-তে পুষ্পলতার বেঁচে থাকাই দায় হয়ে উঠছিল ক্রমশ। শেষমেশ অ্যাসিড খেয়ে জীবনটাকেই শেষ করে ফেললেন। কেরলের বেল্লানাড়ার ঘটনা। পুলিশের অনুমান, বাড়ির পাশে একদল বাঁদরের অত্যাচার সহ্য করতে না পেরেই গত মঙ্গলবার আত্মহত্যা করেন ওই মহিলা। একই কথা জানিয়েছে তাঁর ছেলেও।

কী এমন হয়েছিল যে পুষ্পলতা বাঁদরের অত্যাচারে আত্মহননের পথ বেছে নিলেন?

highlight৫২ বছরের পুষ্পলতা পেশায় দিনমজুর। ছেলে আর মেয়েকে নিয়ে ছোটো সংসার। স্বামী গত হয়েছেন বছর খানেক আগে। বাড়ির পাশের একদল বাঁদর অসহ্য করে তুলেছিল পুষ্পলতার জীবন। কখনও রান্না করা খাবার নিয়ে পালায়, তো কখনও গেরস্থালির জিনিস পত্তর নষ্ট করে দেয়। দিনরাত পরিশ্রম করে যেটুকু ফসল ফলিয়েছিল পুষ্পলতা, সেটুকুও আর কিছু বাকি রাখেনি এলাকায় রবার গাছে থাকা বাঁদরের দল। অ্যাসবেসটাসের চাল ফুটো করে নিজেরাই তৈরি করে নিয়েছিল নিয়মিত ঘরে ঢোকার রাস্তা।

ওদের ‘বাঁদরামি’-র চোটে বাধ্য হয়েই আস্তানা বদলাতে হয়েছিল প্রতিবেশীদের। বাকি ছিল শুধু পুষ্পলতার পরিবার। দিনমজুরি করে ভিটে বদলানোর ব্যবস্থা করা তো আর মুখের কথা না! তাই বাঁদরের অত্যাচার থেকে মুক্তি পেতেই পুষ্পলতা আশ্রয় করলেন মৃত্যুকে। অ্যাসিড পান করে বেছে নিলেন আত্মহননের পথ।

 

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here