খাদির ক্যালেন্ডার, ডায়েরিতে গান্ধীর বদলে মোদী, কর্মীদের প্রতিবাদ

0
136

নয়াদিল্লি: মহাত্মা গান্ধী আর নয়। এবার চরকা কাটার পালা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। খাদি ভিলেজ ইন্ডাস্ট্রি কমিশনের ২০১৭ সালের দেওয়াল ক্যালেন্ডার এবং টেবল ডায়রিতে সেই কাজটাই করছেন তিনি। তবে গান্ধীজির মতো খালি গায়ে আর খেটো ধুতি পরে নয় সাদামাটা চরকা কাটছেন না তিনি। তিনি পরে আছেন কুর্তা-পাজামা-জহর কোট। তাঁর চরকাটিও খানিক আধুনিক চেহারার।

১৯২০-র দশকে ইংরেজদের বিরুদ্ধে অহিংস আন্দোলনের অংশ হিসেবে খাদি আন্দোলন শুরু করেছিলেন মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধী। কেটেছিলেন চরকা। খাদি ভিলেজ ইন্ডাস্ট্রি কমিশনের চেয়ারম্যান বিনয় কুমার সাক্সেনা অবশ্য বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী মোদী “খাদির সবচেয়ে বড়ো ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর”।তিনি দেশে ও দেশের বাইরে খাদিকে জনপ্রিয় করছেন।

এই ছবি পাল্টানোর প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার মধ্যাহ্নভোজের সময় নীরব প্রতিবাদ জানান সংস্থার কর্মীরা। মুখে কালো ব্যান্ড বেঁধেছিলেন তাঁরা। প্রতিবাদ এসেছে বিরোধী দলগুলি থেকেও। সরব হয়েছেন, অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও রাহুল গান্ধী। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল টুইটে বলেছেন, “দীর্ঘদিনের আত্মত্যাগের মধ্য দিয়েই একজন গান্ধী হয়ে উঠতে পারেন। কেবল চরকা কাটার ভূমিকায় অভিনয় করে সেটা সম্ভব না, এতে যারা এসব করছেন, তারা হাস্যাস্পদ হবেন”।

২০১৬ সালে খাদির ক্যালেন্ডারে ঢুক পড়েছিলেন মোদী। তখনো প্রতিবাদ করেছিলেন কর্মীরা। কর্তৃপক্ষ থেকে আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল, ভবিষ্যতে এমনটা আর হবে না। এবছর অবশ্য গান্ধীকে পুরোপুরি সরিয়েই দেওয়া হল।

কেভিআইসি-র চেয়ারম্যান সাক্সেনা বলেছেন, “গোটা খাদি উদ্যোগটাই মহাত্মা গান্ধীর দর্শন ও আদর্শের ওপর দাঁড়িয়ে রয়েছে, তাঁকে অবজ্ঞা করার প্রশ্নই ওঠে না”। পাশাপাশি তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, অতীতের থেকে সরে আসাটা ‘অস্বাভাবিক’ কিছু না। সাক্সেনার কথায়, “ গ্রামগুলিকে স্বনির্ভর করতে প্রধানমন্ত্রী মোদীর ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’-র ভাবনা, ‘দক্ষতা বৃদ্ধির’র মধ্য দিয়ে গ্রামীণ জনতার কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা, খাদিতে আধুনিক প্রযুক্তি নিয়ে আসা, নতুন নতুন উদ্ভাবন এবং বিপণন-এসবই খাদির ভাবাদর্শের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ। সবচেয়ে বড়ো কথা, মোদী যুব সমাজের আদর্শ”।

বেসরকারি ভাবে অবশ্য ইতিমধ্যেই মোদীর নামে একটি পোশাক বানিয়ে ফেলেছে খাদি। হাফ হাতা, আরামদায়ক ‘মোদী-কুর্তা’।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here