গণতন্ত্রের পক্ষে চরম লজ্জার ঘটনা, বললেন আব্দুল মান্নান

0
105

খবর অনলাইন : নারদ নিউজের স্টিং অপারেশন ভোটে প্রভাব ফেলবে কিনা সেটা বড় কথা নয়, তার চেয়েও বড় কথা হল এই ঘটনা গণতন্ত্রের পক্ষে চরম লজ্জার। রাজনীতিকরা ঘুষ খাচ্ছেন, এই ঘটনা ভারতের সংসদীয় গণতন্ত্রের ইতিহাসে এক কলঙ্কজনক ঘটনা। পশ্চিমবঙ্গের পক্ষেও অত্যন্ত লজ্জাজনক ব্যাপার। এই মন্তব্য প্রদেশ কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা আব্দুল মান্নানের। মান্নান জানান, এ ব্যাপারে সিবিআই তদন্ত চেয়ে প্রদেশ কংগ্রেসের তরফে একটি জনস্বার্থ মামলা কলকাতা হাইকোর্টে দায়ের করা হয়েছে। তাদের আবেদনে বলা হয়েছে, রাজ্যের যে সব বিধায়ক বা মন্ত্রীকে গোপন ক্যামেরায় ঘুষ নিতে দেখা গিয়েছে তাঁদের প্রার্থী-পদ বাতিল করতে নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দিক আদালত।
বুধবার ক্যালকাটা জার্নালিস্টস ক্লাব আয়োজিত ‘ফেস টু ফেস’ অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন আব্দুল মান্নান। তিনি বলেন, পরিবর্তনের আশায় বাংলার মানুষ তৃণমূল কংগ্রেসকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় এনেছিল। কিন্তু সম্পূর্ণ বিপরীত ফল ফলেছে। দুর্নীতি না কমে, বহু গুণ বেড়ে গেছে। আর এই দুর্নীতির মূলে রয়েছেন শাসকদের প্রভাবশালী রাজনীতিবিদরা। পরিস্থিতি খুব সংকটজনক। আজ সাহিত্যিক-শিল্পী-সাংবাদিক থেকে শুরু করে শিক্ষক-ছাত্র, সকলেই নিগৃহীত হচ্ছেন। মহিলারাও নির্যাতিত হচ্ছেন বার বার। তাই রাজ্যের মানুষ পরিবর্তনের পরিবর্তন আনতে চাইছেন। আর তাই সাধারণ মানুষের চিন্তাধারাকে সম্মান জানিয়ে সিপিএম ও অন্যান্য বাম এবং আরও কিছু দলের সঙ্গে প্রদেশ কংগ্রেস আসন সমঝোতা করে জোটবদ্ধ হয়েছে।

IMG_8783
এখনও কিছু আসন নিয়ে কংগ্রেস ও বামফ্রন্টের মধ্যে যে বিরোধ রয়েছে সে সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে মান্নান বলেন, মাত্র ২-৩ শতাংশ আসন নিয়ে এখনও বিরোধ আছে। দু’ পক্ষে আলোচনা চলছে। এই বিরোধও মিটে যাবে। “সব কিছুই কি একেবারে ফাইনালে হয় ? কোয়ার্টার ফাইনাল, সেমি ফাইনাল করেই তো পৌঁছনো হবে ফাইনালে” –- মন্তব্য মান্নানের।
প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি অধীর চৌধুরীর সঙ্গে তাঁর বিরোধ প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে মান্নান বলেন, কংগ্রেসের পরিচালনা নিয়ে দলের সভাপতি অধীর চৌধুরীর সঙ্গে তাঁর মতবিরোধ ছিল ঠিকই, তবে রাজ্যের বৃহত্তর স্বার্থে ওই মতবিরোধের এখন আর কোনও গুরুত্ব নেই।
ওই অনুষ্ঠানে জার্নালিস্টস ক্লাবের তরফে তাঁকে স্বাগত জানান সভাপতি হিমাংশু চট্টোপাধ্যায় , সাধারণ সম্পাদক রাহুল গোস্বামী, সহ-সভাপতি প্রান্তিক সেন এবং কোষাধ্যক্ষ পার্থ গোস্বামী।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here