অস্ত্রোপচারের আশঙ্কা নিয়েও আজ দলের জন্য খেলবেন সনি

0
92

সানি চক্রবর্তী:

লিগের গুরুত্বের বিচারে অ্যাসিড টেস্ট। টানা দু’টি ম্যাচে ড্র করায় এক দিকে জয়ের রাস্তায় ফিরে লিগের মগডালে ওঠার লড়াই। অন্য দিকে, চোট-আঘাত সামলে ঘরের মাঠে অল-উইন রেকর্ড বজায় রাখার চ্যালেঞ্জ। টানা খেলার ক্লান্তিতে এ হেন মহা গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগের দিন পুরোদমে অনুশীলন না করলেও ফোকাসড সনি-ডাফি-কাটসুমিরা। তবে এই ম্যাচটা বাগান-জনতার নয়নের মণি সনি নর্ডির কাছেও পেশাদারিত্ব ও আবেগের মিশেলের মাঝে দাঁড়িয়ে এক শক্ত লড়াই। টানা হাঁটুর চোটে ভোগায় আই লিগে এখনও নিজের সেরা ফর্মে পৌঁছতে পারেননি সনি। কখনও খেলতে পেরেছেন, কখনও দলের বাইরে যেতে হয়েছে।

সনির কাছে শিবাজিয়ান্স ম্যাচে মাঠে থাকাটা গুরুত্বপূর্ণ অস্থিবিশেষজ্ঞ অনন্ত জোশির পরামর্শেই। সনিই জানালেন, “ম্যাচ খেলার পরামর্শ দিয়েছেন ডাক্তারই। আসলে ব্যাথাটা কমছে-বাড়ছে। তাই দু’টো ম্যাচে পুরো খেলতে বলেছেন। ম্যাচের শেষে ব্যথা অনুভব করলে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করব। সে ক্ষেত্রে মুম্বই গিয়ে অস্ত্রোপচারও করাতে হতে পারে। দেখা যাক, কী হয়। দলের প্রয়োজন আমাকে, খেলতেই হবে এ রকম গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে।”

সনির কথাগুলো বলার সময়ে পাশে দাঁড়ানো সমর্থকদের মুখে হালকা আশঙ্কার ছাপ স্পষ্ট হয়ে উঠছিল। বাকি সমর্থকরাও যে তার ব্যতিক্রম হবেন না, তা আর বলে দিতে হয় না। আই লিগে শিবাজিয়ান্সের বিরুদ্ধে ম্যাচে খেললেও এএফসি কাপের ম্যাচের জন্য খেলতে যাচ্ছেন না সনি। পাশাপাশি শিবাজিয়ান্স ম্যাচের পরে আই লিগে প্রায় দু’সপ্তাহ কোনো ম্যাচ নেই বাগানের। সঙ্গে তার পরে রয়েছে জাতীয় শিবির। অস্ত্রোপচার করাতে হলে, তার পরে মাঠে ফিরতে অন্তত ১৫ দিন মতো সময় লাগবে। তাই শিবাজিয়ান্স ম্যাচে নিজেকে নিগড়ে দিতে চাইছেন সনি। বলছিলেন, “খুবই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। জিতলে লিগশীর্ষে পৌঁছে যাওয়ার সুযোগ থাকবে মাঝপর্বে।” সনির খেলা না-খেলাটা এখন পুরোটাই নির্ভর করছে শনিবার তিনি কেমন অবস্থায় থাকেন তার উপরে।

সনির চোট নিয়ে চিন্তিত সঞ্জয় সেনও বললেন, “আইএসএলে হাঁটুর চোট হয়েছে। সেটা ভোগাচ্ছে ওকে। হয়তো ওকে ঘিরে যতটা প্রত্যাশা রয়েছে তা পূরণ করতে পারেনি, তবে দলের প্রয়োজনে যা খেলছে তাতে আমি খুশি। দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ও, কিন্তু এটাও মাথায় রাখতে হবে ওকে ছাড়াও আমরা জিতেছি।” গত ম্যাচে দলের স্ট্রাইকারদের গোল না পাওয়া বা বাকি অন্য দুর্বলতা নিয়ে মাথা না ঘামিয়ে যে কোনো ভাবে তিন পয়েন্ট চাইছেন বাগান-কোচ। বাগানের সর্বোচ্চ স্কোরার ডাফি যেমন শিবাজিয়ান্সের বিরুদ্ধে অ্যাওয়ে ম্যাচের প্রসঙ্গ টেনে বললেন, ‘গত বার সাত জনে মিলে ডিফেন্স করেছিল ওরা। চেষ্টা করেও ওদের রক্ষণ সে বার ভাঙতে পারিনি। এ বারেও ওরা রক্ষণাত্মক খেলবে জানি। তাই আমাদের কাছে চ্যালেঞ্জ ওদের রক্ষণ ভাঙাটা। কোচ ও আমরা সবাই সেই লক্ষ্যেই এগোচ্ছি।”

এ দিকে টানা বিমানযাত্রায় ক্লান্ত শিবাজিয়ান্স শিবির শুক্রবার অনুশীলনই করেনি। যৌথ সাংবাদিক সম্মেলনে আসেননি তাদের কোচ ডেভ রজার্স বা অন্য কোনো প্রতিনিধি। ঘটনার জেরে তাদের জরিমানার মুখে পড়তে হতে পারে। তবে সর্বভারতীয় ফুটবল সংস্থার অবিবেচকের মতো বানানো লিগ সূচির সঙ্গে তাল-মেলাতে গিয়েই ক্লান্তির কবলে কম-বেশি ভুগতে হচ্ছে প্রায় সব দলকেই, প্রশ্নটা কিন্তু উঠছে।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here