বিজয় হাজারেতে দুরন্ত জয় বাংলার, সেমিফাইনালে ধোনিদের সামনে

0
86

নয়াদিল্লি: রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে মহারাষ্ট্রকে হারিয়ে বিজয় হাজারে ট্রফির সেমিফাইনালে উঠল বাংলা। শুক্রবার সেমিফাইনালে বাংলার সামনে ধোনির ঝাড়খণ্ড।

বুধবার কোয়ার্টার ফাইনালের ম্যাচে টসে হেরে প্রথমে ফিল্ডিং করতে হয় বাংলাকে। প্রথম কুড়ি ওভারে মরাঠি ব্যাটসম্যানদের বেশ চাপেই রেখেছিল বাংলার বোলাররা। ২২ ওভারে তিনটে উইকেট হারিয়ে স্কোরবোর্ডে মাত্র ৯৬ তুলেছিল মহারাষ্ট্র। এর পরই ম্যাচে ফিরতে শুরু করে মহারাষ্ট্র। অধিনায়ক কেদার যাদব করেন ৪৪। দলের স্কোর যখন চার উইকেটে ১৪৮, দাপট দেখানো শুরু করেন দুই মরাঠি ব্যাটসম্যান রাহুল ত্রিপাঠী এবং নিখিল নায়েক। মাত্র পাঁচ রানের জন্য শতরান ফসকান ত্রিপাঠী। নায়েক করেন ৬৩। নির্ধারিত পঞ্চাশ ওভারে ছ’উইকেটে ৩১৮ করে তারা।

রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা খারাপ করেনি বাংলা। অভিমন্যু ঈশ্বরনকে হারালেও শ্রীবৎস গোস্বামী এবং অগ্নিভ পানের দুর্দান্ত পার্টনারশিপে ম্যাচে ফেরে বাংলা। এর পর একটা ছোটখাটো ভাঙনের মুখে পড়ে বাংলা। এক উইকেটে ১০৬ থেকে স্কোর পৌঁছোয় চার উইকেটে ১৮৭-তে। প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন শ্রীবৎস (৭৪), অগ্নিভ (৪৭) এবং মনোজ (৪০)। জেতার জন্য বাকি ১৭ ওভারে দরকার ১৩২। খেলা ধরেন সুদীপ চট্টোপাধ্যায় এবং অনুষ্টুপ মজুমদার। আস্কিং রেট বাড়তে থাকলেও, ধীরেসুস্থে বাংলার ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যান দু’জন। ৫৯ বলে ৬৬ করে অনুষ্টুপ যখন আউট হন বাংলার তখন দরকার দশ বলে ১৫ রান। শেষ ওভারে বাংলার দরকার ছিল সাত রান। জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় সেই রান তুলে নেন আমীর গোনি। এক বল বাকি থাকতে জিতে যায় বাংলা। ৬০ রানে অপরাজিত থাকেন সুদীপ।

বিজ্ঞাপন

অন্য দিকে, অধিনায়ক ধোনির ক্যারিসমা এখনও অব্যাহত। কোয়ার্টার ফাইনালের অপর ম্যাচে বিদর্ভকে ছ’উইকেটে হারাল ঝাড়খণ্ড। টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করলেও ঝাড়খণ্ডের বোলিং-এর সামনে সে ভাবে খাতা খুলতে পারেনি বিদর্ভ। পঞ্চাশ ওভারে ন’উইকেটে মাত্র ১৫৯ জোটে বিদর্ভর কপালে। রান তাড়া করতে নেমে অবশ্য বিশেষ হ্যাপা পোহাতে হয়নি ঝাড়খণ্ডকে। পাঁচ ওভার বাকি থাকতে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় রান তুলে নেয় ঝাড়খণ্ড। একটি চার এবং একটি ছয় মেরে ১৮ রানে অপরাজিত থাকেন ধোনি। 

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here