পারল না বেঙ্গালুরু, জয় ছিনিয়ে নিল হায়দরাবাদ

0
65

খবর অনলাইন: বার বার ন’ বার। তবুও আইপিএল ট্রফি অধরাই থাকল বেঙ্গালুরুর। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের দেওয়া ২০৯ রানের লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে গিয়ে যে ভাবে শুরু করেছিলেন ক্রিস গেইল, তাতে মনে হয়েছিল জয়ের জন্য নির্ধারিত রানে পৌঁছতে খুব একটা বেগ পেতে হবে না রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুকে। মাত্র ৯ ওভারে তারা ১০০-য় পৌঁছে যায়। এই একশোয় মুখ্য ভূমিকা ছিল গেইলের। তাঁর সংগ্রহে ৭৪, কোহলির ২০। ৩৮ বলে ৭৬ রান করে গেইল যখন আউট হন, তখন বেঙ্গালুরুর জয়ের জন্য দরকার ছিল ৫৭ বলে ৯৫। হাতে ৯ উইকেট। হাল ধরেন কোহলি। কোহলি অর্ধশত রান পূর্ণ করেন ৩২ বলে। ১২.৫

ওভারের মাথায় আউট হন কোহলি। দল তখন ১৪০। তখনও ম্যাচ বেঙ্গালুরুর হাতের বাইরে যায়নি। সেই মুহূর্তে তাদের জয়ের জন্য দরকার ছিল ৪৩ বলে ৬৯ রান, যা টি-২০ ম্যাচে সহজ টার্গেট বলেই গণ্য হয়। কিন্তু সংশয় দানা বাধে মাত্র ৮ রান পরে এ বি ডেভিলিয়ার্স আউট হতে। এর পর ম্যাচ ক্রমশ বেঙ্গালুরুর হাতের বাইরে চলে গিয়েছে। মাঝেমাঝে দু’-একটা চার-ছক্কা দেখা গেলেও তাতে কাজ হয়নি। নিয়মিত ব্যবধানে উইকেট পড়েছে। শেষ কালে তরুণ ক্রিকেটার শচিন বেবি চেষ্টা করেছিলেন, কিন্তু কাজ হয়নি। তিনি শেষ পর্যন্ত ১০ বলে ১৮ রান করে অপরাজিত থাকেন।

এর আগে টসে জিতে ব্যাটিং নেয় হায়দরাবাদ। অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার (৩৮ বলে ৬৯), বেন কাটিং (১৫ বলে ৩৯) এবং যুবরাজের (২৩ বলে ৩৮) সৌজন্যে তারা পৌঁছে যায় ৭ উইকেটে ২০৮ রানে। ৪ ওভারে ৪৫ রানের বিনিময়ে ৩ উইকেট নেন জর্ডন।

বিজ্ঞাপন

সানরাইজার্সের বেন কাটিং বোলিং-এও দক্ষতার (৩৫ রানে ২ উইকেট) পরিচয় দিয়ে ম্যান অব দ্য ম্যাচ হন।

২০১৬-এর আইপিএলে বেঙ্গালুরুর শুরুটা ভালো ছিল না। অর্ধেক খেলা হয়ে যাওয়ার পরেও তাদের স্থান ছিল শেষের দিকে। কিন্তু আইপিএলের পরের অর্ধে তাদের প্রত্যাবর্তন ছিল চমকপ্রদ। টানা ম্যাচ জিতে তারা দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসে। ফলে শীর্ষ স্থানে থাকা গুজরাত লায়নস-এর সঙ্গে তারা কোয়ালিফায়ার খেলার সুযোগ পায় এবং গুজরাতকে হারিয়ে চলে আসে ফাইনালে। ও দিকে হায়দরাবাদের জায়গা আগাগোড়াই প্রথম চারের মধ্যে ঘোরাফেরা করেছে। বেঙ্গালুরুর মতো তাদের খেলায় অত পতন-উত্থান ছিল না। আটটি দলের মধ্যে সব চেয়ে বেশি ধারাবাহিকতা দেখিয়ে ডেভিড ওয়ার্নারের দল আইপিএল ৯-এর ট্রফি তুলে নিল। আইপিএল-এর ইতিহাসে সর্বোচ্চ রান (৯৭৩) করে টুর্নামেন্টের সেরা নির্বাচিত হন বিরাট কোহলি।

ছবি: সৌজন্যে ইএসপিএন ক্রিকইনফো

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here