বিরাট, বুমরাহের সৌজন্যে সেঞ্চুরিয়ন টেস্টে আশা জিইয়ে রাখল ভারত

0
278

দক্ষিণ আফ্রিকা: ৩৩৫ এবং ৯০-২ (ডে’ভিলিয়ার্স অপরাজিত ৫০, এলগার অপরাজিত ৩৬, বুমরাহ ২-৩০)

ভারত: ৩০৭ (বিরাট ১৫৩, বিজয় ৪৬, মর্কেল ৪-৬০)

সেঞ্চুরিয়ন: বিয়ে করে নাকি বিরাটের মাথা ঘুরে গিয়েছে! আগের টেস্টে ব্যর্থ হওয়ার পর, অনেকের মুখেই এ রকম অভিযোগ ভেসে আসছিল। ট্রোল করা হচ্ছিল অনুষ্কাকেও। এই সবেরই যেন যোগ্য জবাব দিলেন বিরাট। তাঁর শতরান এবং বুমরাহের পেসে ভর করে দ্বিতীয় টেস্টে আশা জিইয়ে রাখল ভারত।

আরও পড়ুন: আরও একটি ‘বিরাট’ রেকর্ড, জেনে নিন কী?

বিজ্ঞাপন

বিদেশের মাঠে তো বটেই, সম্ভবত নিজের কেরিয়ারের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ ইনিংসটি এ দিন খেললেন ভারত অধিনায়ক। এক দিকে পরের পর উইকেটের পতনে যখন দল বিপর্যস্ত, তখন একটা দিক ধরে রেখে দক্ষিণ আফ্রিকার স্কোরের কাছাকাছি নিয়ে গেলেন তিনি। তাঁকে কিছুটা সংগত দিলেন অশ্বিন এবং ইশান্ত। ১৫৩ রানের দুর্ধর্ষ এই ইনিংসটা বিরাট না খেললে ভারতের যে বড়ো লজ্জা অপেক্ষা করেছিল, সেটা বলাই বাহুল্য।

সোমবার তৃতীয় দিনের খেলার শুরুর সময় গুরু দায়িত্ব ছিল হার্দিক পাণ্ড্যর ওপরে। নিজের প্রথম টেস্টেই দুর্ধর্ষ ইনিংস খেলেছিলেন তিনি। এ বার তাঁর দায়িত্ব ছিল অধিনায়ককে সংগত নিয়ে দলের স্কোর এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। সেই কাজে শুরুটাও ভালো করেছিলেন। কিন্তু বোকার মতো রান আউট হয়ে যান তিনি। তাঁর রান আউটের ধরন দেখে স্বয়ং গাভাসকরও বলে ওঠেন “এটা অমার্জনীয় ভুল”।

আরও পড়ুন: ‘ক্ষমার অযোগ্য’ রান আউট হার্দিক পাণ্ড্যর, ক্ষোভে ফেটে পড়ল টুইটার-ভিডিও

হার্দিক ফিরে যাওয়ার পরে বিরাটকে সাহায্য করে যান অশ্বিন। ৩৮ রানের একটি ঝকঝকে ইনিংস খেলেন তিনি। অশ্বিনের পরে ভালো পার্টনারশিপ তৈরি হয় বিরাট এবং ইশান্তের মধ্যেও। দক্ষিণ আফ্রিকার স্কোর থেকে মাত্র ২৮ রান দূরে থামে ভারত।

দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসের শুরুতেই প্রত্যাঘাত করেন জসপ্রীত বুমরাহ। প্রথম ছ’ওভারের মধ্যেই মার্করাম এবং আমলা ফিরিয়ে দেন তিনি। মাত্র তিন রানের মাথায় দু’জনকে হারিয়ে তখন থরহরিকম্প প্রোটিয়া শিবির। চতুর্থ উইকেটে খেলা ধরেন ডিন এলগার এবং ডেভিলিয়ার্স। বৃষ্টি, মন্দ আলোর বাধা কাটিয়ে এখনও অবিচল রয়েছে এলগার-ডে’ভিলিয়ার্স জুটি। ইতিমধ্যে অর্ধশতরান করে ফেলেছেন ডেভিলিয়ার্স।

যা পরিস্থিতি তাতে এখনও ম্যাচে টিকে রয়েছে ভারত। চতুর্থ দিন যদি ভারতের বোলাররা জ্বলে উঠতে পারেন, তা হলে এই টেস্টে ভারতের জয়ের একটা ক্ষীণ আশা তৈরি হতেও পারে।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here