দাদার শহরে দাদাগিরি, ধোনি ধামাকায় মাতল ইডেন

0
71

সানি চক্রবর্তী:

শনিবার ছিল ট্রেলার, পুরো ছবিটা তিনি দেখালেন রবিবার। দাদার শহরে দাদাগিরি করে গেলেন মাহি। ব্যাটসম্যান ধোনি করলেন শতরান, অধিনায়ক ধোনি দিলেন তাঁর দলকে জয়।

রবিবাসরীয় ইডেনে অবশ্য শুরুর দিকে ঝাড়খণ্ডের পরিস্থিতি একেবারেই বলার মতো কিছু ছিল না। টসে জিতে ফিল্ডিং-এর সিদ্ধান্ত নেয় ছত্তীসগঢ়। শুরুতেই ঝাড়খণ্ড ব্যাটিং-এ থরহরিকম্প লাগিয়ে দেন ঘরোয়া ক্রিকেটে নবাগত এই দলের বোলাররা। দলের স্কোর যখন তিন উইকেটে ৩৯, ব্যাট হাতে নামেন মাহি। দ্রুত আরও তিন উইকেট খোয়ায় তাঁর দল। কুড়ি ওভারে ছ’উইকেট হারিয়ে ঝাড়খণ্ডের স্কোর তখন মোটে ৫৭। একা কুম্ভ হিসেবে তখন লড়ে যাচ্ছেন ধোনি। তাঁকে সঙ্গত দিতে এলেন শাহবাজ নদিম। পরের কয়েক ঘণ্টা শুধু ধোনি ধামাকা। ধোনির তাণ্ডবে তখন ভয় সিঁটিয়ে গিয়েছেন বিপক্ষের বোলাররা। একেকটা বল মাঠের বাইরে পাঠাচ্ছেন, চিৎকার করে উঠছেন উৎসাহী জনতা। এমনিতে ধোনির টানে শনিবারের তুলনায় রবিবার একটু বেশি দর্শক এসেছিলেন মাঠে। তাঁর ব্যাটিং ধামাকা দেখে সবাই আনন্দিত।

শতরান পূর্ণ করতে ধোনি নিলেন ৯৪টি বল। অপর প্রান্তে ধোনির ছোঁয়ায় হাত খুলে খেলেছেন নদিমও। শতরানের পর আরও ধ্বংসাত্মক হয়ে ওঠেন ধোনি। ১০৭ বলে ১২৯ রান করে ঝাড়খণ্ড ইনিংসের শেষ ওভারেই ফেরেন তিনি। ন’উইকেটে ২৪৩ রান করে ঝাড়খণ্ড। ব্যাট হাতে ভেল্কি দেখানোর পর, এ বার অধিনায়কত্বে ক্যারিসমা দেখানোর কথা তাঁর। বলা বাহুল্য সেখানেও একশোয় একশো তিনি। মাত্র ১৬৫ রানেই শেষ হয়ে যায় ছত্তীশগঢ়। তিনটে করে উইকেট নেন নদিম এবং বরুণ অ্যারন। ৭৮ রানে জিতল ঝাড়খণ্ড।

কলকাতার পর এ বার ধোনি-ধামাকা দেখার সুযোগ এল কল্যাণীর মানুষের কাছে। ঝাড়খণ্ডের পরবর্তী ম্যাচ মঙ্গলবার সার্ভিসেসের বিরুদ্ধে।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here