বরদলই ট্রফির সেমিফাইনালে ইস্টবেঙ্গল

0
71

দুটি ম্যাচের দুটিতেই জয়। বরদলই ট্রফির গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে নামার আগেই শেষ চারে স্থান পাকা করে ফেলল ইস্টবেঙ্গল। ইউনাইটেড সিকিমকে ২-০ ব্যবধানে হারিয়ে সেমিফাইনালে পৌঁছে গেল রঞ্জন চৌধুরীর ‘তরুণ’ লাল-হলুদ ব্রিগেড।

এমনিতেই ইস্টবেঙ্গলের বদলে ইস্টবেঙ্গল সভাপতি একাদশ নামে বরদলই ট্রফিতে খেলা নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। এদিন ফের বিতর্কে জড়াল অসমের প্রাচীন এই ট্রফিটি। দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরুর পরেই মাঠে আলোকবিভ্রাট ঘটে। প্রায় ১৫ মিনিট খেলা বন্ধ থাকে। বাধ্য হয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয় ম্যাচের সরাসরি সম্প্রচার। অসমের মুখ্যমন্ত্রী তথা সদ্যপ্রাক্তন ক্রীড়ামন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোওয়াল এবারে উদ্বোধন করেছেন প্রতিযোগিতার। সংগঠকরা মুখে পেশাদারিত্ব দেখানোর কথা বললেও এদিনের ঘটনা তাদের দক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিল।

আলোকবিভ্রাট পর্ব কিছুটা ফোকাস নষ্ট করে সিকিমের দলের ফুটবলারদের। অপরদিকে, ইস্টবেঙ্গলের খেলায় দেখা যায় হাজার ওয়াটের ঝলকানি। একাধিক গোলের সুযোগ তৈরি করতে থাকে তারা। সামাদের একটি শট পোস্টে লাগে। শেষমেশ ৭৬ মিনিটে আসে কাঙ্ক্ষিত গোলটি। নিখিল পূজারির অসাধারণ পাস থেকে গোল করেন জিতেন মুর্মু। ৮৫ মিনিটে পরিবর্ত কিম-এর পাস থেকে ব্যবধান বাড়ান আদিলেজা। ম্যাচ দেখতে গুয়াহাটিতে উপস্থিত ছিলেন ইস্টবেঙ্গলের ঘরের ছেলে ও ইউনাইটেড সিকিমের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা বাইচুং ভুটিয়া।

এদিকে, স্পনসর বদলের পথে হাঁটতে চলেছে ইস্টবেঙ্গল। এমনটাই সূত্রের খবর। যার ফলে কিছুদিনের মধ্যেই কিংফিশার লোগো সরে যেতে পারে ইস্টবেঙ্গলের জার্সি থেকে। আই লিগ ও আইএসএল মিশে যাওয়াকে মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত কি না জানা যায়নি। তবে ইতিমধ্যে বিভিন্ন পন্থা অবলম্বন করে ক্লাবকে আধুনিক করার পথে পা বাড়িয়েছেন লাল-হলুদ কর্তারা।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here