ভারত-অস্ট্রেলিয়া ২০০৩-০৪ সিরিজের কিছু মুহূর্ত, দেখুন ভিডিও

0
90

কলকাতা: নিঃসন্দেহে সাম্প্রতিক ইতিহাসে ভারতের সব থেকে স্মরণীয় সিরিজ হিসেবে গণ্য হবে ২০০৩-০৪-এ অস্ট্রেলিয়া সফর। এমন এক সিরিজ, যা ভারতীয় ক্রিকেটের গতিপথ পালটে দিয়েছিল। বিদেশেও ভারত সমান টক্কর দিতে পারে, বুঝিয়েছিল সেই সিরিজ। আসুন এক ঝলক দেখেনি, সেই সিরিজের কিছু মুহূর্ত।

স্টিভের অবসর: খেলা ছাড়ার আগে তাঁর শেষ ইচ্ছে ছিল ঘরের মাঠে সৌরভের ভারতকে হারিয়ে চিরবিদায় জানাবেন ক্রিকেটকে। কিন্তু সেই স্বপ্ন অধরাই থেকে গেল স্টিভেন রজার ওয়ের। দর্শকের মনে আজও অমলিন সিরিজের শেষ লগ্নে হার বাঁচানো দুর্ধর্ষ ৮০ রানের একটি ইনিংস।

বিজ্ঞাপন

সচিন ২৪১, সিডনি: প্রথম তিনটে টেস্টে ব্যর্থ। ব্যাটে রান না আসায় নিজেও হতাশ সচিন। বেছে নিলেন শেষ টেস্টের মঞ্চকে। ব্যাট থেকে বেরোল দুর্ধর্ষ দ্বিশতরান। তাঁর ব্যাটে ভর করে সিডনি টেস্টের প্রথম ইনিংসে সাতশো রান পেরিয়ে গেল ভারত।

দ্রাবিড় ২৩৩, অ্যাডেলেড: এই ইনিংসটা না হলে অস্ট্রেলিয়া সফরটি কোনোভাবেই ঐতিহাসিক হত না। অ্যাডিলেডের দ্বিতীয় টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার খাড়া করা ৫৫৬-এর বিরুদ্ধে ব্যাট করতে নেমে ৮৫ রানের মধ্যে চার উইকেট খুইয়ে ভারত ধুঁকছে। রুখে দাঁড়ালেন দ্রাবিড়। লক্ষণকে সঙ্গে নিয়ে তৈরি করলেন ৩০৩ রানের পার্টনারশিপ। ব্যাস, ম্যাচের মোড় ঘুরে গেল। ২৩৩ রানে শেষ হল দ্রাবিড়ের ইনিংস।

সৌরভ ১৪৪, ব্রিসবেন: ক্যাপ্টেনকে আটকানোর যাবতীয় রসদ তৈরি রেখেছিল স্টিভবাহিনী। তিনি ব্যাট করতে নামলেই ধেয়ে আসবে ‘চিন মিউজিক’ বর্ষণ। এ সবের কিছু তোয়াক্কা না করে অবলীলায় ব্যাটিং বিক্রম চালালেন বঙ্গসন্তান। সিরিজের ‘ট্রেন্ড সেটার’ হয়ে গেলেন সৌরভ।

বাজিমাত আগরকরের: অ্যাডিলেড টেস্টে দ্বিতীয় ইনিংসে অস্ট্রেলীয় ব্যাটিং ভাঙার দায়িত্ব একার হাতে নিয়ে নিলেন অজিত আগরকর। ৪১ রান দিয়ে নিলেন ৬ উইকেট। ১৯৬ রানে শেষ অস্ট্রেলিয়া।

সহবাগ ১৯৫, মেলবোর্ন: একমাত্র সহবাগই পারেন ছয় মেরে দু’শো করতে গিয়ে আউট হয়ে যাওয়া। কিন্তু তাতে তাঁর আদৌ কোনো আক্ষেপ ছিল না। মেলবোর্নে ১৯৫ করে আউট হওয়ার পর, সহবাগ জানিয়ে দেন ভবিষ্যতেও মারার বল পেলে তিনি মারবেন।

ট্রফি ভারতের: সব থেকে সেরা মুহূর্ত। টেস্ট সিরিজ ১-১ ব্যবধানে ড্র। অস্ট্রেলিয়ার মাটি থেকে বর্ডার-গাভাসকর ট্রফি ছিনিয়ে নিল ভারত।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here