অস্ট্রেলীয় ওপেনের ফাইনালে নাদাল বনাম ফেডেরার

0
60

মেলবোর্ন: টেনিসে ওপেন যুগ শুরু হওয়ার এই প্রথম কোনো গ্র্যান্ডস্লামের ফাইনালের পুরুষ ও মহিলা বিভাগে যে চার জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন, তাঁদের সকলেরই বয়স ৩০-এর বেশি।

শনিবার মহিলাদের ফাইনালে খেলবেন দুই বোন ভেনাস ও সেরেনা। একজন ৩৬, অন্যজন ৩৫। ৯ বছর আগের উইম্বলডন ফাইনালেও হয়েছিল এমনটাই।

ছেলেদেরও তাই হল, ২০০৮ সালের উইম্বলডন ফাইনালের শেষ সেটে ফেডেরারকে ৯-৭ হারিয়েছিলেন নাদাল। অনেকেরই মতে সেটা টেনিসের ইতিহাসে সর্বকালের সেরা ম্যাচ।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার ফাইনালে উঠে বারবার নাদালের কথা বলেছিলেন ফেডেরার। বলেছিলেন, তিনি চান, নাদাল ফাইনালে উঠুন। গত ২ বছর বেশির ভাগ সময়টাই দু’জনেই চোটের জন্য কোর্টের বাইরে থেকেছেন। নাদাল শেষ গ্র্যান্ডস্লাম জিতেছেন ২০১৪-য়। ফেডেরার ২০১২ সালে।

শুক্রবার নাদালের গলাতেও সেই একই সুর। বললেন ফেডেরারের কথা। বললেন, তিনি কখনও ভাবেননি আরও একবার অস্ট্রেলীয় ওপেনের ফাইনালে উঠতে পারবেন। সেই একবারই, ২০০৯ সালে এই টুর্নামেন্ট জিতেছিলেন নাদাল।

নাদাল বনাম ফেডেরারের লড়াইয়ে অবশ্য নাদালই এগিয়ে বরাবর। দুজনে কেরিয়ারে ৩৪ বার মুখোমুখি হয়েছেন। ২৩ বার জিতেছেন নাদাল। গ্র্যান্ডস্লাম ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছেন ৮ বার। ৬ বার জিতেছেন নাদাল।

ফেডেরারে ঝুলিতে অবশ্য গ্র্যান্ডস্লামের সংখ্যা বেশি। ১৭। নাদালের ১৪।

এই নিয়ে ২৮ বার গ্র্যান্ডস্লামের ফাইনালে খেলবেন ফেডেরার। নাদাল ২১ বার।

এই সব কথার মাঝে ভোলা যাবে না বুলগেরিয়ার গ্রিগর দিমিত্রভের কথা। ৪ ঘণ্টা ৫৬ মিনিটের ম্যাচে অনেকটা সময়ই দাপট ছিল তাঁর। স্কোরেও সেটা বোঝা যাবে। নাদাল জিতলেন ৬-৩, ৫-৭, ৭-৬, ৬-৭, ৬-৪ সেটে।২৫ বছরের দিমিত্রভকে দেখে মনে হচ্ছিল, নাদাল বোধহয় পারলেন না।

কিন্তু টেনিসের ঈশ্বর যদি ফাইনাল লাইন আপ ঠিক করে রাখেন, তাহলে নাদালকে অতিমানব হওয়া থেকে রুখবেন, দিমিত্রভের কি সাধ্যি!

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here