৭৬৬ শট, দীর্ঘতম টেবিল টেনিস র‍্যালি কাতার ওপেনে, দেখুন ভিডিও

0
88

সিঙ্গাপুর: প্রতিপক্ষ নেদারল্যান্ডের লি জি ও জাপানের হিতোমি সাতো। আন্তর্জাতিক টেবিল টেনিস ফেডারেশনের কাতার ওপেনের মহিলা বিভাগের প্রথম রাউন্ডের ম্যাচ। বৃহস্পতিবার রাতে চলছিল ম্যাচটির তৃতীয় গেম। সেখানেই ঘটে গেল, এই আশ্চর্য কাণ্ড। ১০ মিনিট ১৩ সেকেন্ড ধরে চলল র‍্যালি। তাও সেই র‍্যালির শেষে কেউ পয়েন্ট জেতেননি। লি জি-র কোচ বাইরে থেকে বল ছুঁড়ে খেলায় বিঘ্ন ঘটান। তাতেই থামে র‍্যালিটি। ওই পয়েন্টের জন্য নতুন করে সার্ভ হয়। সেই পয়েন্টটি জেতেন লি জি।

জি এবং সাতো দু’জনেই রক্ষণাত্মক খেলার জন্য পরিচিত। ম্যাচের শেষে জি বলেন, তিনি ওই গেমে তিনি শুধুমাত্র ‘পুশ’ করবেন বলে ঠিক করেছিলেন। জি-এর কথায়,” আমি আশা করিনি সাতো-ও ‘পুশ’ করতে শুরু করবে। ওই জন্যই র‍্যালিটা অত বড়ো হয়ে গেছে”।

ওই পয়েন্টের পর বাকি ম্যাচের জন্য ‘সুবিধাজনক ব্যবস্থা’ (expedite system) প্রয়োগ করা হয়। ওই ব্যবস্থা অনুযায়ী, একটি পয়েন্টের জন্য একজন খেলোয়াড় সার্ভিস করবেন, পরের পয়েন্টের জন্য অন্যজন সার্ভিস করবেন। সার্ভিসের পর ১৩টি শটের মধ্যে যদি পয়েন্টের নিষ্পত্তি না হয়, তাহলে যিনি সার্ভিস রিটার্ন করেছেন, তিনি পয়েন্ট পেয়ে যাবেন। যাতে খেলাটি আক্রমণাত্মক হয়, সে জন্যই এই ব্যবস্থা প্রয়োগ করা হয়। শেষ পর্যন্ত সাত গেমের ম্যাচটি জেতেন লি জি। ফল, ১০-১২, ৬-১১, ১১-৯, ১১-৮, ১১-৯, ৩-১১, ১১-৯।

আন্তর্জাতিক টেবিল টেনিস ফেডারেশন বা আইটিটিএফ আধুনিক টেবিল টেনিসের রেকর্ড রাখছে ১৯৩৭ সাল থেকে। তার আগে দীর্ঘতম র‍্যালিটি হয়েছিল প্রাগে, ১৯৩৬ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে। পোল্যান্ডের অ্যালোজজি এরলিচের মুখোমুখি হয়েছিলেন রোমানিয়ার পেনেথ ফারকাস। পিংপং বলটি ২ ঘণ্টা ১২ মিনিট ধরে ১২হাজার বার নেট পারাপার করার শেষ পয়েন্ট জেতেন এরলিচ।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here