পুজোর আগেই স্কুলে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করার পথে রাজ্য

0
164

আজ হলে আজ, কাল হলে কাল। জরুরিকালীন ভিত্তিতে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করার নির্দেশ দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার  বিকাশ ভবনে তিনি বলেন, যাঁরা টেট উত্তীর্ণ হয়েছেন, তাঁরা অপেক্ষা করছেন বহুদিন ধরে। তাই শিক্ষক নিয়োগে এক মুহূর্ত দেরি করা যাবে না। তিনি এব্যাপারে অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতে দুই স্কুল বোর্ডের চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দিয়েছেন।

বিকাশ ভবনে শিক্ষাসচিব, দুই স্কুল বোর্ডের চেয়ারম্যানের সঙ্গে এদিন শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত জরুরি বৈঠকে বসেন শিক্ষামন্ত্রী। বৈঠক থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জানান, তিনি নির্দেশ দিয়েছেন, শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় এক মুহূর্তও দেরি করা যাবে না। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করতে হবে। তা আজই হোক আজ, কাল হোক কাল। জরুরিকালীন ভিত্তিতে করতে হবে কাজ। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব শিক্ষক নিয়োগ হবে বলে আশ্বাস দেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তার আগে প্রয়োজনীয় ইন্টারভিউ এবং অন্যান্য প্রক্রিয়া সেরে ফেলা হবে বলে জানান তিনি। সূত্রের খবর, পুজোর আগে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি জারি হয়ে যেতে পারে।    

শিক্ষামন্ত্রী আরও জানান, এবারে প্রাইমারি টেটে ১ লক্ষ ৪০ হাজার প্রার্থী পাশ করেছেন। যা একটা রেকর্ড। আপার প্রাইমারিতে কতজন পাশ করেছেন তা অবশ্য বলেননি তিনি। মোটামুটি ৬০ হাজার শিক্ষক নিয়োগের সম্ভাবনা বলে শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন।  

পার্থ চট্টোপাধ্যায় আরও বলেন, শিক্ষক নিয়োগে কোর্টের নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে পালন করা হবে। নিয়োগে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে টেট এবং প্রশিক্ষিতদের। 

এছাড়াও আরও একটা কথা জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। হাইস্কুলে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে তিনভাগে নিয়োগ পরীক্ষা নেবে স্কুল সার্ভিস কমিশন। তারমধ্যে প্রথমভাগ ক্লাস সিক্স থেকে এইটের (আপার প্রাইমারি টেট) ফল ইতিমধ্যেই বেরিয়েছে। সফল প্রার্থীদের থেকে চাকরির আবেদন চাওয়া শুরু হবে শিগগিরই। 

এরপরে নাইন ও টেন স্তরের পরীক্ষা হবে। সেক্ষেত্রে নোটিস দেওয়া হবে। এই পরীক্ষার জন্য প্রার্থীদের গ্র্যাজুয়েট বা পোস্ট গ্র্যাজুয়েট স্তরে ৫০ শতাংশ পেতে হবে। প্রশিক্ষণও থাকতে হবে। 

পরের ধাপ ক্লাস ইলেভেন থেকে টুয়েলভ। সেক্ষেত্রে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট স্তরে ৫০ শতাংশ পেতে হবে প্রার্থীকে। থাকতে হবে প্রশিক্ষণও । 

পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, দুটি স্কুল বোর্ডকে তিনি বলেছেন, প্রয়োজনীয় নোটিস ইত্যাদি অবিলম্বে দিতে হবে প্রার্থীদের জন্য। কিছু পরিবর্তন হলে তাও জানাতে বলেছেন। 

নিয়োগ সংক্রান্ত অর্ডিন্যান্স ইতিমধ্যেই বের করা হয়েছে বলেও জানান শিক্ষামন্ত্রী।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here