বাজেটে কোনো ঘোষণা নেই, উত্তরের চা-বলয়ে ক্ষোভ

0
86

নিজস্ব সংবাদদাতা, জলপাইগুড়ি : চা-শ্রমিকদের হতাশ করলেন ‘চা-ওয়ালা’ প্রধানমন্ত্রী। বাজেটে জায়গা পেল না বাগিচা শিল্প। ক্ষোভে ফুঁসছে উত্তরের চা-বলয়।

উত্তরের প্রধান শিল্প চা। জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, দার্জিলিং জেলায় ২৭৩টি চা বাগান রয়েছে। রয়েছে বটলিফ ফ্যাক্টরি। এই শিল্পের ওপর নির্ভরশীল প্রায় তিন লক্ষ মানুষ। কিন্তু গত এক দশক ধরে এই শিল্পে চলছে দুঃসময়। কম উৎপাদন, মজুরি দিতে না পারা সহ একাধিক কারণে বন্ধ হয়ে পড়ে রয়েছে ১২ বাগান। এ ছাড়াও রুগ্ন অবস্থায় রয়েছে ১৫টি চা বাগান।

এই অবস্থায় সকলের আশা ছিল সাধারণ বাজেটে এমন কিছু পদক্ষেপ করবে সরকার, যাতে এই শিল্পে ফের জোয়ার আসবে। বাগান মালিকদের দাবি ছিল এই শিল্পে কর ছাড় দিক সরকার। এ ছাড়াও বিশেষ ‘ফান্ড’ ঘোষণা হোক। এই নিয়ে চা-মালিকদের সংগঠনগুলি বারবার সরকারের দ্বারস্থ হয়েছে বিভিন্ন সময়। বাগানগুলির দুরবস্থা অজানা নয় কেন্দ্রীয় সরকারেরও। ক্ষমতায় আসার পর ডুয়ার্সে এসে নিজেকে ‘চা-ওয়ালা’ বলে পরিচয় দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আশ্বাস দিয়েছিলেন চা-শ্রমিকদের সমস্যা দূর করার। একাধিকবার এই এলাকার চা বাগানের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে গিয়েছেন কেন্দ্রীয় বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। কিন্তু বুধবার কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির বাজেট ঘোষণায় ‘ভাঁড়ার’ শুন্য দেখে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন ‘ভুখা’ মানুষগুলি। তৃণমুলের চা-শ্রমিক সংগঠন তরাই-ডুয়ার্স টি প্ল্যান্টেশন ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের জলপাইগুড়ি জেলার কার্যকরী সভাপতি স্বপন সরকারের অভিযোগ, বাগানের সহজ সরল মানুষগুলোকে নিয়ে শুধু রাজনীতি করছে বিজেপি সরকার, শ্রমিকদের সমস্যা নিয়ে তারা যে এতটুকু চিন্তিত নয়, বাজেটে এই শিল্পের প্রতি অবহেলাই তার প্রমাণ। সরস্বতীপুর চা বাগানের শ্রমিক রামু ওরাওঁ-এর অভিযোগ, নোট বাতিলের ফলে মজুরি পাওয়া নিয়ে যে সমস্যা তৈরি হয়েছিল, তার সমাধানের কোনো রাস্তা বাতলানো হয়নি বাজেটে।

বাগান মালিকদের সংগঠন ইন্ডিয়ান টি প্ল্যান্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের উপদেষ্টা অমিতাংশু চক্রবর্তীর অভিযোগ, তাঁরা এই সাধারণ বাজেট নিয়ে হতাশ। রুগ্ন চা শিল্পকে চাঙ্গা করার কোনো উপায় বাতলানো হয়নি এই বাজেটে বলে ক্ষোভ জানিয়েছেন তিনি। এই শিল্পকে বাঁচাতে বিকল্প হিসেবে টি-টুরিজম নিয়ে দীর্ঘদিনের দাবি থাকলেও,তা নিয়েও আলাদা কোনো ঘোষণা নেই বাজেটে। এই পরিস্থিতিতে সমস্ত শ্রমিক সংগঠনকে এক সঙ্গে নিয়ে আন্দোলনের নামার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ২৩টি চা-শ্রমিক সংগঠনের যৌথমঞ্চের মুখপাত্র জিয়াউল আলম। বাজেটে বাগিচা-শিল্পের প্রতি অবহেলা এর সঙ্গে যুক্ত লক্ষ লক্ষ শ্রমিককে অন্ধকারের দিকে ঠেলে দেবে বলে অভিযোগ তাঁর।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here