উলুবেড়িয়ার প্রার্থী নিয়ে বুক ফাটলেও মুখ খুলতে পারছে না প্রদেশ কংগ্রেস

0
781
west bengal pradesh congress

কলকাতা: হাইকম্যান্ডের চাপিয়ে দেওয়া প্রার্থীকে না পারা যাচ্ছে ফেলতে, আর না গিলতে। কিন্তু দলীয় শৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে প্রকাশ্যে এ বিষয়ে মুখ খুলতে পারছে না প্রদেশ কংগ্রেসের একাংশ। উলুবেড়িয়া লোকসভা উপনির্বাচনের প্রার্থী নির্বাচিত হয়ে গেলেও ক্ষোভের আগুন নিভছে না। প্রদেশ কংগ্রেসের প্রভাবশালী একটি গোষ্ঠীর দাবি, জাতীয় নেতৃত্বের চাপিয়ে দেওয়া প্রার্থীর হয়ে প্রচারে নামলেও কাজের কাজ কতটা হবে, তা নিয়ে এখন থেকেই সংশয় দেখা দিয়েছে।

শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস এবং সিপিএম উপনির্বাচনের প্রার্থী ঘোষণার কয়েক দিন পর কংগ্রেস নিজের দলের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করে। বিধানভবনের এক নেতা জানান, ‘দুই কেন্দ্রের দুই সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম আমরা অনেক আগেই স্থির করে ফেলেছিলাম। দলীয় নীতি মেনে আমরা তাকিয়ে ছিলাম দিল্লির দিকে। তবে আমরা প্রাথমিক ভাবে স্থির করেছিলাম এলাকার পরিচিত আইনজীবী মুন্সি মতিয়ার রহমানকে প্রার্থী করা হবে উলুবেড়িয়ায়। কিন্তু দলের সভাপতি রাহুল গান্ধী সিদ্ধান্ত নেন মুদ্দাসর হোসেন ওয়ার্শিকে প্রার্থী করা হবে।’

হোসেনসাহেব অতীতে ছাত্র পরিষদের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। কিন্তু মাঝে তাঁর সঙ্গে দলের দূরত্ব তৈরি হয়। এমনিতে তাঁর যোগ্যতা নিয়ে কোনো প্রশ্ন নেই। ম্যানেজমেন্টে তাঁর অগাধ জ্ঞান। কিন্তু সাধারণ মানুষের কাছে ভোট চাইতে গেলে ঠিক যে ধরনের অভিজ্ঞতা বা দক্ষতার প্রয়োজন হয়, সে সবের কিছুটা হলেও খামতি দেখছেন প্রদেশ কংগ্রেসের ওই গোষ্ঠী।

বিজ্ঞাপন

সূত্রের খবর, প্রদেশ সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরী স্বয়ং নাকি এআইসিসি সদস্যদের বোঝানোর চেষ্টা করেছিলেন, বাংলার রাজনীতি সম্পর্কে সড়গড় কোনো তরুণ মুখকে উলুবেড়িয়ার প্রার্থী করা হোক। গত ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে অসিত মিত্রের মতো জনপ্রিয় নেতাকে প্রার্থী করেও কংগ্রেস সে বার চতুর্থ স্থান পেয়েছিল। ফলে এ বার সর্ববারতীয় রাজনীতির প্রেক্ষাপটে বিজেপি বিরোধিতার রেশ ধরে কিছু একটা করে দেখানোর চেষ্টায় ছিলেন তিনি। কিন্তু এআইসিসি এমন এক জনকে প্রার্থী করল যে, এখন থেকেই তাঁর প্রতি অনীহা দেখাচ্ছেন কেউ কেউ।

সব মিলিয়ে পরিস্থিতি এমন জায়গায় দাঁড়িয়েছে যে, শুধু মাত্র দায়বদ্ধতা পালনের স্বার্থেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা শব্দবন্ধটিকে সম্মান জানাচ্ছে প্রদেশ কংগ্রেসের একাংশ। ওই নেতা বলেন, একে তো নির্বাচনী তহবিলের দুরবস্থা অন্য দিকে নাম মাত্র জন সংযোগ রয়েছে, এমন একজন প্রার্থীকে নিয়ে কেউ-বা মাথা ঘামাবে?

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here