বোনাস কমলেও স্বস্তির হাওয়া উত্তরবঙ্গের চা বলয়ে

0
78

অবশেষে পুজোর ১৮ দিন আগে চা বাগানের বোনাসচুক্তি চূড়ান্ত হল। পরপর তিনটি বৈঠক নিস্ফলা হওয়ার পর রবিবার রাত পর্যন্ত হওয়া চতুর্থ দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে নিষ্পত্তি হয় চা বাগানের বোনাস-সমস্যার। তবে শ্রমিক ইউনিয়নগুলির দাবিমতো ২০% নয়, ১৯% হারে বোনাস পাবেন লাভে চলা বাগানগুলির শ্রমিকরা। তবে বোনাসের হার কমে যাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বাগানের সাধারণ শ্রমিকরা। ডুয়ার্স-তরাইয়ের মোট ১৭৩টি চা বাগানের শ্রমিকেরা এই বোনাসের আওতায় আসছেন।

এর আগে প্রতিবছর ২০% হারে বোনাস দিত ডুয়ার্স ও তরাইয়ের চা বাগানগুলি। এবারও শ্রমিক ইউনিয়নগুলি একই হারে বোনাস দেওয়ার দাবি তুলেছিল। কিন্তু মালিকপক্ষ তাতে রাজি হয়নি। তাদের বক্তব্য ছিল বাগানের ক্যাটেগরি অনুসারে বোনাস দেওয়া হবে। সেক্ষেত্রে  এ, বি, সি, ডি, এই চারটি ক্যাটেগরিতে বাগানগুলিকে ভাগ করা হয়েছিল। তবে এই বিভাজন মেনে নেয়নি শ্রমিক সংগঠনগুলি।

২০ আগস্ট এবং ৪ ও ৯ সেপ্টেম্বরের বোনাস বৈঠক এই কারণে ভেস্তে যায়। শুরু হয় চা বাগানগুলিতে আন্দোলন। কাজ বন্ধ রেখে বেশ কয়েকদিন ‘গেট মিটিং’ করেন শ্রমিকরা। ফলে পুজোর মুখে চা উৎপাদনে ক্ষতির সন্মুখীন হচ্ছিল বাগানগুলি। এই অবস্থায় ফের রবিবার কলকাতায় বেঙ্গল চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ ভবনে বৈঠকে বসেন বাগানমালিকদের সংগঠন এবং ডান-বাম সমস্ত শ্রমিক ইউনিয়নের প্রতিনিধিরা। সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর ১৯% হারে লাভজনক বাগানগুলিতে বোনাস দিতে রাজি হয় মালিকপক্ষ। ক্যাটেগরি উঠিয়ে দেওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন শ্রমিক ইউনিয়নগুলি।  

রুগ্ন বাগানগুলির ক্ষেত্রে বোনাসের এই হার কার্যকার হচ্ছে না। এই বাগানগুলির আর্থিক অবস্থা খতিয়ে দেখে বোনাসের পরিমাণ ঠিক করা হবে। মালিকপক্ষের তরফে ইন্ডিয়ান টি প্ল্যান্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের ডুয়ার্স শাখার উপদেষ্টা অমৃতাংশু চক্রবর্তী জানিয়েছেন, পারস্পারিক সহমতের ভিত্তিতে বোনাসের হার ঠিক হয়েছে। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তা মিটিয়ে দেবে সমস্ত বাগান। চা শ্রমিক সংগঠনগুলির যৌথ মঞ্চের নেতা জিয়াউল আলম জানিয়েছেন, ক্যাটেগরি প্রথা উঠিয়ে একই হারে সমস্ত শ্রমিকদের বোনাস দেওয়ার এই সিন্ধান্তই তাদের জয়।

এদিকে সাধারণ শ্রমিকেরা কিন্তু এই বোনাস চুক্তিতে খুশি নন। জ্যোতি ওরাওঁ, মুস্কান খেরিয়ার মতো শ্রমিকদের বক্তব্য, যেখানে প্রতিনিয়ত দ্রব্যমুল্য বৃদ্ধি পাচ্ছে, সেখানে বোনাসের হার অন্যান্য বছরের থেকে কমে যাওয়া তারা মেনে নিতে পারছেন না। তবে যেহেতু একবার চুক্তি হয়ে গিয়েছে তাই তাঁরা তা মেনে নেবেন বলে জানিয়েছেন।

বোনাসের ঘোষণা হয়ে যাওয়ায় খুশি ডুয়ার্স-তরাই সহ উত্তরবঙ্গের চা বলয়ের ব্যাবসায়ীরা। কারণ পুজোর আগে প্রায় ৪ লক্ষ শ্রমিক বোনাস পান। প্রায় ৪০০ কোটি টাকার লেনদেন হয় ব্যবসায়ীদের।

সব মিলিয়ে বোনাসের হার একটু কম হলেও পুজোর মুখে স্বস্তির হাওয়া চা বলয়ে।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here