উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমলেও এখনও জারি সতর্কর্তা, বুধবার থেকে আবহাওয়ার উন্নতির সম্ভাবনা

0
1299

জলপাইগুড়ি: টানা তিন দিন এক নাগাড়ে বৃষ্টির পর উত্তরবঙ্গের পাঁচ জেলায় কিছুটা কমেছে বৃষ্টির দাপট। বিক্ষিপ্ত ভাবে দেখা মিলেছে রোদেরও। তবে আগামী দু’দিন ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সতর্কতা জারি রেখেছে আবহাওয়া দফতর।

শুক্রবার সকাল থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত ২৯৫ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছিল জলপাইগুড়িতে। গত পনেরো বছরে যা রেকর্ড। তবে শনিবার সকাল থেকে রবিবার সকাল পর্যন্ত বৃষ্টি হয়েছে ৫২ মিলিমিটার। এই পরিস্থিতিতে কিছুটা উন্নতি হয়েছে জলপাইগুড়ি শহরের জলছবির।

শুধু জলপাইগুড়িই নয়, বৃষ্টির দাপট কমায় হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছেন বাকি এলাকার মানুষও। শনিবার উত্তরবঙ্গের সব থেকে বেশি বৃষ্টি রেকর্ড করা হয় ঝালং-এ। যেখানে বৃষ্টির পরিমাণ ছিল দেড়শো মিলিমিটার। বাকি তিন দিনের তুলনায় যা খুবই কম। শুক্রবার ৪৮০ মিলিমিটারের বৃষ্টিতে অতীতের সমস্ত রেকর্ড ছাপিয়ে গিয়েছিল হাসিমারা। সেই হাসিমারাতে শনিবার বৃষ্টি হয়েছে ৫০ মিলিমিটার।

বৃষ্টি কমেছে কোচবিহারেও। শনিবার সেখানে বৃষ্টি হয় ৪৯ মিমি। তবে শনিবারও জোর বৃষ্টি হয়েছে আলিপুরদুয়ার শহরে। সেখানে ৯০ মিমি বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়। শিলিগুড়িতে শনিবার ৯০ মিমি বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়। বৃষ্টির দাপট কমলেও এখনও দু’দিন ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সতর্কতা জারি করে রেখেছে আবহাওয়া দফতর।

একই মত বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কার। তাঁর মতে, উত্তরবঙ্গের ওপরে থাকা মৌসুমী অক্ষরেখা এবং বিহারে সৃষ্ট হওয়া ঘূর্ণাবর্তের প্রভাবে এখনও ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা থেকে যাচ্ছে। বুধবারের পর ওই অক্ষরেখাটি উত্তরবঙ্গ থেকে সরে যাবে। তার পর থেকে ক্রমশ উন্নতি হতে শুরু করবে আবহাওয়া।

কলকাতার ট্রেন বাতিল

অতি বৃষ্টি, বন্যা পরিস্থিতি এবং কিসানগঞ্জ স্টেশন জলের তলায় চলে যাওয়ার ফলে রবিবার উত্তরবঙ্গ থেকে কলকাতামুখী কয়েকটি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। ট্রেনগুলি হল ডাউন দার্জিলিং মেল, ডাউন তিস্তা তোর্সা এক্সপ্রেস, ডাউন উত্তরবঙ্গ এক্সপ্রেস, ডাউন কাঞ্চনকন্যা এক্সপ্রেস এবং ডাউন পদাতিক এক্সপ্রেস।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here