রাজ্য জুড়ে জেটি সুরক্ষা ঢেলে সাজার পরিকল্পনা পরিবহণ দফতরের

0
79

কলকাতা: ঝুঁকি নিয়ে গঙ্গা পারাপার বন্ধ করতে নড়েচড়ে বসল রাজ্য পরিবহণ দফতর। জেটির সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হল সরকারের পক্ষ থেকে। সারা  রাজ্যে মোট ৬৮টি জেটিকে ঢেলে সাজার পরিকল্পনা রয়েছে। পাশাপাশি জেটির নিরাপত্তা ব্যবস্থা মজবুত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রকল্পকে বাস্তবায়িত করতে দরপত্র প্রকাশ করা হয়েছে ইতিমধ্যেই।

যাত্রীদের জীবনে ঝুঁকি নিয়ে গঙ্গার এ-পার থেকে ও-পারে পারাপার করতে হয়। জলপথ পরিবহণের কঙ্কাল দশায় বহু যাত্রীর অকালে প্রাণ গিয়েছে।  জেটি ও লঞ্চের মাঝে ফাঁকা জায়গা দিয়ে গঙ্গায় পড়ে যাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে।  তা সত্ত্বেও কলকাতার বাবুঘাট, ফেয়ারলি বা চাঁদপাল ঘাটের চেনা ছবিটা পাল্টায়নি এতটুকু। দেরিতে হলেও শেষমেশ নড়েচড়ে বসল পরিবহণ দফতর।  দফতরের এক আধিকারিক বললেন, ফেরিঘাটগুলিতে নদীর পাড় থেকে জেটিতে ওঠার যে সেতু থাকে, তার মুখেই একটি দরজা বসানো হবে। জেটিতে লঞ্চ পৌঁছনোমাত্রই যে ভাবে যাত্রীরা হুড়মুড়িয়ে উপরে ওঠেন, তা আটকাতেই এই ব্যবস্থা। তাই লঞ্চ থেকে সমস্ত যাত্রী না নামা পর্যন্ত ওই গেট খোলা হবে না। এই ব্যবস্থার জন্য কোনো যাত্রীই সেতু পার হয়ে লঞ্চে উঠতে পারবেন না। ফলে ঝুঁকি অনেকটাই কমানো যাবে বলে ওই আধিকারিক দাবি করেছেন। গঙ্গার বুকে লঞ্চে ওঠার জেটির গোটা অংশেই লোহার রেলিং দিয়ে ঘেরা হবে। এ ছাড়াও, নজরদারির জন্য সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো হবে জেটি চত্বরে। যে সব ঘাটে পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা নেই, সেখানে  আলো বসানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে পরিবহণ দফতরের পক্ষ থেকে।

রাজ্য পরিবহণ দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজ্যে ৬৯৬টি জায়গায় লঞ্চ এবং ভুটভুটিতে যাত্রীরা নদী পারাপার করেন। তার মধ্যে ৩৭৭টিতে লোহার জেটি রয়েছে। কিন্তু প্রায় প্রতিটিতেই যে যাত্রী নিরাপত্তার যথেষ্ট খামতি রয়েছে, তা স্বীকার করেছেন দফতরের সব আধিকারিকই।  ৩৭৭টি লোহার জেটির মধ্যে ২৯টি জেটি রয়েছে ‘ওয়েস্ট বেঙ্গল ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশন’ (ডব্লিউবিটিসি)-এর অধীনে। বাকিগুলি জেলা পরিষদ, পুরসভা বা পঞ্চায়েত সমিতির অধীনে রয়েছে।  যে সমস্ত জেটি জেলার অধীনে পড়ছে, সেখানে জেলাশাসকের তত্ত্বাবধানে কাজ হবে বলে জানা গিয়েছে। বরাদ্দ করা হয়েছে প্রায় ৮কোটি টাকা। এ ছাড়া পথ নিরাপত্তার পাশাপাশি জলপথ নিরাপত্তার এই প্রকল্পকে বাস্তবায়িত করতে সচেতন করা হবে যাত্রীদের। তার জন্য পরিকল্পনাও প্রস্তুত বলেও জানা গিয়েছে।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here