পাহাড় নিয়ে এখনই ত্রিপাক্ষিক বৈঠক নয়, জানিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী

0
808
mamata bandyopadhyay

শিলিগুড়ি পাহাড়ের সমস্যা নিয়ে ত্রিপাক্ষিক বৈঠক এখনই ডাকা সম্ভব নয়। মঙ্গলবার শিলিগুড়ির উত্তরকন্যায় অনুষ্ঠিত সর্বদলীয় বৈঠকে পরিষ্কার জানিয়ে দিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠকে ঠিক হয়েছে, তৃতীয় সর্বদলীয় অনুষ্ঠিত হবে ১৬ অক্টোবর। সেই বৈঠকেই পাহাড়ের ব্যাপারে ত্রিপাক্ষিক বৈঠক নিয়ে আলোচনা হবে। পাহাড়ে বন্‌ধ প্রত্যাহার করে নেওয়ার জন্য সর্বদলীয় মুখ্যমন্ত্রী উপস্থিত সকলের কাছে আবেদন জানান। মুখ্যমন্ত্রী পরিষ্কার জানিয়ে দেন, রাজ্য সরকার পাহাড়ে শান্তি চান।

বৈঠকের পর মুখ্যমন্ত্রী সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, পাহাড়ে বিগত কয়েক মাস ধরে যা হয়েছে তা নিয়ে চর্চা তিনি করছেন না। গণতন্ত্রে বিরোধ, বিক্ষোভ, বক্তব্য থাকবেই। এই মুহূর্তে পাহাড়ে শান্তি-শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা প্রধান কাজ। এটাই যে এখন প্রধান কাজ সে বিষয়ে বৈঠকে উপস্থিত সবাই এক মত হয়েছেন। গত কয়েক মাস ধরে পাহাড়ে যে অশান্তি চলছে তাতে ৬০০ কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে। এই ক্ষতি কী ভাবে পূরণ করা যায়, সেটাই রাজ্যের সব চেয়ে বড়ো চিন্তা।

সাংবাদিকদের মুখ্যমন্ত্রী জানান, পাহাড়ে যে সব বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে, যে নাশকতার ঘটনা ঘটেছে, তা নিয়ে উচ্চপর্যায়ের তদন্ত হবে। পাহাড়ে সাম্প্রতিক গোলযোগে যাঁরা মারা গিয়েছেন, তাঁদের পরিবারদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। মুখ্যমন্ত্রী জানান, ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে কাজে যোগ দেওয়ার জন্য সরকারি কর্মীদের কাজে যোগ দিতে বলা হয়েছে। ১৫ তারিখের মধ্যে কাজে যোগ দিলে তাঁদের এক মাসের টাকা অগ্রিম দেওয়া হবে বলে জানান।

বিজ্ঞাপন

আশঙ্কা ছিল, মঙ্গলবারের বৈঠক শেষ পর্যন্ত হবে কিনা। কারণ শোনা যাচ্ছিল, গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার প্রতিনিধিরা গোর্খাল্যান্ডের প্রসঙ্গ তুললে রাজ্য সরকারের প্রতিনিধিরা তা মানবেন না। তখন মোর্চার প্রতিনিধিরা বৈঠক বয়কট করে বেরিয়ে যাবেন। কিন্তু সব আশঙ্কা মিথ্যা প্রমাণ করে বৈঠক শান্তিপূর্ণ ভাবে শেষ হয়। মোর্চার বিনয় তামাং গোষ্ঠীর পাঁচ জন উপস্থিত ছিলেন। ও দিকে বিমল গুরুং-এর গোষ্ঠীর তরফে দুই বিধায়ক সরিতা রাই এবং অমর সিং রাই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। বিনয় তামাং অবশ্য বলেন, তাঁরা মোর্চার তরফে সাত জন উপস্থিত ছিলেন। মোর্চা ছাড়াও জিএনএলএফ, জাপ (গোর্খা পিপলস পারতি)-এর প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here